৩ মার্চ ২০২৪, রবিবার

‘আন্ডারডগ’ খেতাব নিয়ে ভাবেন না উইলিয়ামসন

- Advertisement -

‘কালোঘোড়া’, ‘আন্ডারডগ’- যেকোন বিশ্ব আসরে নিউজিল্যান্ডের নামের আগে এই জাতীয় বিশেষণ বসা অনেকটা অলিখিত নিয়মের মতো হয়ে গেছে। বড় কোন টুর্নামেন্টের আগে খুব বেশি আলোচনায় থাকে না কিউইরা, কিন্তু দেখা যায়, কিভাবে কিভাবে যেন ঠিকই সেমিফাইনাল বা ফাইনালে উঠে গেছে দলটা। ২০১৫ বিশ্বকাপের আগে অবশ্য ‘ফাইনাল’ পর্যন্তও যেত না তাসমান পাড়ের দলটি।

তবে এখন দৃশ্যপট অনেকটা পাল্টেই গেছে। ২০১৫ ও ২০১৯- পরপর দুই ওয়ানডে বিশ্বকাপে ফাইনালে ওঠা এবং ২০১৯ এ ট্রফি জয়ের একেবারে চুল পরিমাণ দূরত্ব থেকে ফিরে আসা, এইবছর টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জেতা- নিউজিল্যান্ডকে তো এখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপারও অন্যতম দাবিদার ধরাই যায়।

বিশ্বকাপ অধিনায়কদের ভার্চুয়াল মিডিয়া ইন্টারঅ্যাকশন

বিশ্বকাপের আগে বৃহস্পতিবার ছিল অধিনায়কদের প্রথম ‘ভার্চুয়াল মিডিয়া ইন্টারঅ্যাকশন’। নিয়াল ও’ব্রায়েনের সঞ্চালনে এই জুম মিটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন, অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ ও সাউথ আফ্রিকার অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা। এই অনুষ্ঠানে নিয়াল ও’ব্রায়েন আবারো ‘আন্ডারডগ’ শব্দটি নিয়ে কেন উইলিয়ামসনকে খোঁচা দেওয়ার চেষ্টা করেন। প্রশ্ন করেন, এবার কি নামের পাশ থেকে এই ‘খেতাব’ দূর করতে পারবে কিউইরা? ব্ল্যাকক্যাপস অধিনায়কের জবাবের ভাষা অবশ্য ছিল বরাবরের মতোই নম্রভদ্র।

“দেখুন খেতাব তো খেতাবই, সব দলের নামের পাশেই কোন না কোন খেতাব রয়েছে। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ  একটি অসাধারণ আয়োজন- প্রতিটি দলেই অনেক ম্যাচ উইনার রয়েছেন। যে কেউ যেকোনদিন যে কাউকে হারিয়ে দিতে সক্ষম। খেতাব-টেতাব নিয়ে চিন্তা না করে, আমাদের প্রতিটি ম্যাচ আলাদা আলাদা পরিকল্পনা করে এগোতে হবে। আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য থাকবে শুরুর কিছু ম্যাচ জিতে কিছু বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগানো”- বলেছেন উইলিয়ামসন  

সুপার টুয়েলভের গ্রুপ ২ তে নিউজিল্যান্ডের প্রতিপক্ষ ভারত, পাকিস্তান ও (সম্ভাব্য) বাংলাদেশ। তিন তিনটি উপমহাদেশীয় দলের একগাদা স্পিনারের মুখোমুখি হতে হবে নিউজিল্যান্ডকে। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের নিচু, মন্থর ও স্পিন সহায়ক উইকেট থেকে সিরিজ হেরে এসেছে নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় সারির দল। আইপিএল থেকে যা বোঝা যাচ্ছে, আমিরাতের উইকেটও মিরপুরের মতো না হলেও যথেষ্ট নিচু ও মন্থরই হতে যাচ্ছে। যদিও বিশ্বকাপের আগে আইসিসির কিউরেটরের অধীনে যাচ্ছে পিচগুলো, তবে এই অল্পদিনে পিচের চরিত্র কতোটুকুই বা বদলাবে?

উইলিয়ামসব অবশ্য কাঁটা দিয়েই কাঁটা তুলতে চান। আইপিএলে খেলার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়েই জয় করতে  চান উপমহাদেশের স্পিন-জুজুকে।

“আইপিএলে খেলে যে অভিজ্ঞতা আমরা অর্জন করেছি সেটি বিশ্বকাপে কাজে লাগবে। আইপিএলে এবার আমরা অনেক বৈচিত্র্যময় উইকেটসমূহে খেলেছি, একেক পিচের চরিত্র একেক রকম। আইসিসি ইভেন্টের আগে পিচের চরিত্র পরিবর্তন করা হবে অবশ্যই তবে আমার মনেহয় বিশ্বকাপেও পিচগুলোর আচরণ খুব একটা বদলাবে না। এই ব্যাপারটি মাথায় রেখে আমাদের পরিকল্পনা সাজাতে হবে।”

আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক ছিলেন উইলিয়ামসন

উইলিয়ামসন এই আইপিএলে ছিলেন সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের অধিনায়ক; তাঁর দল এবার আট দলের মধ্যে ৮ম হয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করেছে। উইলিয়ামসন ছাড়াও, কাইল জেমিসন, ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি, লকি ফার্গুসন, জিমি নিশাম, গ্লেন ফিলিপসসহ আরো অনেক টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে থাকা কিউই খেলোয়াড় খেলেছেন এই আইপিএলে।

সুপার টুয়েলভে নিউজিল্যান্ডের প্রথম ম্যাচ ২৬ তারিখ পাকিস্তানের বিপক্ষে শারজাহতে। এর আগে অবশ্য ১৮ তারিখে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে রয়েছে তাদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ।

 

 

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img