১৭ জুলাই ২০২৪, বুধবার

আশা জাগিয়েও পারল না নেপাল

- Advertisement -

শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৮ রান। ওর্টনেল বার্টম্যানের করা ওভারের তৃতীয় বলে বাউন্ডারি মেরে সমীকরণটা ৩ বলে ৪ রানে নিয়ে আসেন গুলশান ঝা। তবে সেই সমীকরণটা শেষ পর্যন্ত মেলাতে পারেননি তিনি। শেষ বলে রান আউট না হলে অন্তত সুপারে ওভারে নিয়ে যেতে পারত নেপাল। কিন্তু তা আর হলো কই, সাউথ আফ্রিকার কাছে ১ রানে হার নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা।

টস জিতে সাউথ আফ্রিকাকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নেপাল। কিংস্টাউনে কুইন্টন ডি কক-এইডেন মার্করামদের সুবিধা করতে দেয়নি সন্দ্বীপ লামিচানে-সোমপাল কামিরা। উইকেট তুলনামুলক ব্যাটিং-ফ্রেন্ডলি হলেও নেপালি বোলাররা করেছেন দুর্দান্ত বোলিং।

সাউথ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ ৪৩ রানের ইনিংস খেলেন রিজা হেনড্রিকস। ৪৯ বলের ইনিংসটিতে ৫টি বাউন্ডারি ও ১টি ছক্কা মেরেছেন প্রোটিয়া এ ওপেনার। এছাড়া শেষের দিকে ১৮ বলে ২ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ২৭ রান করেছেন ট্রিস্টান স্টাবস। ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে সাউথ আফ্রিকা সংগ্রহ করে ১১৫ রান।

নেপালের হয়ে ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন কুশাল ভারটেল। ৩ উইকেট নিতে দীপেন্দ্র সিং আইরি খরচ করেছেন ৪ ওভারে ২১ রান।

১১৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করে নেপাল। ভারটেলকে ফিরিয়ে ৩৫ রানের জুটি ভাঙেন তাব্রেইজ শামসি। ঐ ওভারেই রোহিত পৌডেলের উইকেটও নেন তিনি।

দ্রুত দুই উইকেট হারানোর পর জুটি গড়ার দিকে মনোযোগ দেন আসিফ শেখ ও অনিল শাহ। দুজনের জুটিতে ওঠে ৩৬ বলে ৫০ রান। তাতেই একটা সময় মনে হচ্ছিল সহজ জয় পেতে যাচ্ছে নেপাল। কিন্তু দুজনের কেউই পারেননি ম্যাচ শেষ করে আসতে।

৪৯ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৪২ রান করে শামসির বলে বোল্ড হন আসিফ। অনিল শাহকে ফিরিয়েছেন মার্করাম। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ২৪ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ২৭ রান করেন অনিল।

সাউথ আফ্রিকার হয়ে ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন তাব্রেইজ শামসি।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img