NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
৮ আগস্ট ২০২২, সোমবার

ইউক্রেনের জালে ইংল্যান্ডের এক হালি

- Advertisement -

শেষ চারে নিজেদের জায়গা সুসংহত করেছে ইংল্যান্ড। ইউয়েফা ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালির রোমে ইউক্রেনের বিপক্ষে ৪-০ গোলের জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। হ্যারি কেইনের জোড়া গোলের পাশাপাশি বাকি দুই হ্যারি ম্যাগুইরে এবং জর্দান হেন্ডার্সনের। ফলে প্রথম দল হিসেবে ইউরোতে প্রথম পাঁচ ম্যাচেই কোনো গোল না খাওয়ার রেকর্ড করেছে ইংল্যান্ড।

গত ২০১৮ বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে উঠেছিল ইংল্যান্ড। এবার উঠলো ইউরোর সেমিফাইনালে। ফলে দ্বিতীয়বার টানা দুই বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠেছে ইংল্যান্ড। এছাড়া ইউরো ইতিহাসের দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে তিন গোলের বেশি ব্যবধানে জিতে সেমিফাইনালে ওঠার রেকর্ড গড়ল ইংল্যান্ড। বৈশ্বিক আসরে ৯ গোল নিয়ে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা এখন হ্যারি কেইন।

সেমিফাইনালে যাওয়ার স্বপ্নে বিভোর হওয়া ইংলিশদের স্বপ্নকে সত্যি করার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন অধিনায়ক হ্যারি কেইন। ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় গোল করে ইংল্যান্ডকে এগিয়ে দেন এই টটেনহ্যাম স্ট্রাইকার। রাহিম স্টার্লিংয়ের পাস থেকে এই নাম্বার নাইনের ঠান্ডা মাথার ফিনিশ এগিয়ে দেয় ইংলিশদের। ১৭ মিনিটে ইউক্রেনের আক্রমন প্রতিহত করেন ইংল্যান্ড গোলকিপার জর্দান পিকফোর্ড। ইয়ারেমচুকের শট কর্নানের বিনিময়ে রক্ষা করেন তিনি। ৩৩ মিনিটে ম্যাসন মাউন্টের আক্রমণ প্রতিহত হয় ইউক্রেন ডিফেন্সে।

মিনিট ছয়েক পর সদ্য বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেওয়া জ্যাদন সানচোকে গোলবঞ্চিত করেন বুসকান। যদিও এর আগেই লুক শ এর বিরুদ্ধে অফসাইডের ফ্ল্যাগ উঁচিয়ে ধরেন লাইন্সম্যান। তবে রিপ্লেতে দেখা যায় , যদি সানচো গোলটা করতে পারতেন তবে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফরির সহায়তায় সেই অফসাইড বাতিল হতো। প্রথমার্ধের শেষ বাঁশি বাজার মিনিটখানেক আগে সমতায় ফিরে বিরতিতে যাওয়ার সুযোগ হারায় ইউক্রেন। শাপারেঙ্কোর শট একটুর জন্য গোলের বাইরে দিয়ে গেলে এক গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ইউক্রেন।

ড্রেসিংরুমে ইংলিশ কোচ হ্যারি কেইনদের কি শিখিয়ে দিয়েছিলেন, সেটা বলা মুশকিল। তবে ইংলিশ কোচের মূলমন্ত্র যে ছিল আক্রমনের পর আক্রমন করে ইউক্রেনের কোমড় ভেঙে দেওয়া , তা একেবারে নিশ্চিত। আক্রমনের সঙ্গে সঙ্গে ফলও এসে যায় হাতেনাতে। বিরতিতে থেকে ফিরে মিনিট খানেকের মধ্যেই ব্যবধান দ্বিগুন করেন ডিফেন্ডার হ্যারি ম্যাগুইরে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সতীর্থ লুক শ এর ফ্রিকিক থেকে দারুন হেডে বল জালে জড়ান ইংলিশ ডিফেন্ডার। চার মিনিট পর আবার শ’য়ের অ্যাসিস্ট। এবার তার বাড়ানো বল থেকে হেডে গোল করে নিজের দ্বিতীয় গোল পূরণ করার পাশাপাশি দলকে ৩-০ গোলে এগিয়ে দেন হ্যারি কেইন। তিন গোল নিয়ে চলতি ইউরোতে ইংল্যান্ডের হয়ে যুগ্মভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা হ্যারি কেইন। চলতি ইউরোতে এ নিয়ে লুক শয়ের অ্যাসিস্ট তিনটি। শয়ের উপরে আছেন পাঁচ অ্যাসিস্ট করা ডেভিড বেকহাম ।

৬২ মিনিটে নিজের হ্যাট্রিক পূরণের সুযোগ ছিল কেইনের সামনে। কেইনের বাঁ পায়ের ভলি বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে দুর্দান্ত দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন বুসকান। সেই কর্নার থেকেই গোল পায় ইংল্যান্ড। মাউন্টের কর্নার থেকে জর্দান হ্যান্ডারসন গোল করে ব্যবধান করেন ৪-০। ৬২তম ম্যাচে এসে এটা লিভারপুল মিডফিল্ডারের ইংল্যান্ড জার্সিতে প্রথম গোল। ফলে ১৯৬৬ বিশ্বকাপ ফাইনালের পর এই প্রথম বৈশ্বিক আসরের নক আউট স্টেজে চার গোল করল ইংল্যান্ড। ৭৫ মিনিটে ইউক্রেনকে আরেকবার গোলবঞ্চিত করেন জর্দান পিকফোর্ড। ম্যাকারেঙ্কোর শট ঠেকিয়ে ক্লিনশিট ধরে রাখেন ইংলিশ কিপার।

বাকি সময় দুদলই গোল করার চেষ্টা করেছে। ইংল্যান্ড ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা করেছে, ইউক্রেন চেয়েছে পরাজয়ের ব্যবধান কমাতে। তবে শেষ পর্যন্ত ৪-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইংল্যান্ড। বৈশ্বিক আসরে চারটা নকআউট ম্যাচ জিতে নিশ্চিতভাবেই ইংল্যান্ডের সবচেয়ে সফল ম্যানেজার গ্যারেথ সাউথগেট।সেমিফাইনালে ডেনমার্কের মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img