৬ ডিসেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

ইউরো মিশনে ঘরের মাঠে হারে শুরু জার্মানির

- Advertisement -
ম্যাটস হামেলসের লজ্জার রেকর্ডে ইউয়েফা ইউরো ২০২০ এ নিজেদের প্রথম ম্যাচে পূর্ন ৩পয়েন্ট পেলো ফ্রান্স। জার্মানির ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে আত্মঘাতী গোল করেন ম্যাটস হামেলস।ম্যাচের ২০মিনিটে তার এই গোলে লিড পায় ফরাসিরা। বাকি সময় ৬২শতাংশ বল পজিশন এবং ৬১৭ টি পাস কমপ্লিট করলেও কোনো গোল করেনি জার্মানি। ফলে হামেলসের আত্মঘাতী গোলে ম্যাচ হয় ফ্রান্সের।
ছবিঃ টুইটার
ছবিঃ টুইটার
মঙ্গলবার সাবেক এবং বর্তমান দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়নের লড়াই মাঠে গড়ায় মিউনিখের আলিয়াঞ্জ এরেনায়। খেলার ১৬মিনিটে জার্মানির গোলে দূরপাল্লার শট নিয়ে নিজের উপস্থিতি জানান দেন পিএসজি স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপ্পে। খেলার ২০মিনিটে ফরাসি বায়ার্ন লেফটব্যাক লুকাস হার্নান্দেজের এমবাপ্পে কে লক্ষ্য করে দেয়া ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়ে আত্মঘাতী গোল করেন ম্যাটস হামেলস। গোল খাওয়ার পর জার্মানরা আরও তেঁতে ওঠে। পরের মিনিটেই থমাস মুলারের হেড টার্গেটের বাইরে গেলে গোলের সুযোগ হারায় জার্মানি। খেলার ২৪ ও ২৬ মিনিটে ফ্রান্সের বক্সের কিছুটা বাইরে ফ্রিকিক পায় জার্মানি। স্নাইপার খ্যাত টনি ক্রুশ ফ্রিকিক থেকে গোল করতে পারেন নি। বিরতির আগে আর কোন গোল হয়নি; ০-১ গোলের লিড নিয়ে টানেলে যায় ফ্রান্স।
ছবিঃ ইন্টারনেট
ছবিঃ ইন্টারনেট
বিরতির পর আক্রমনের ধার বাড়ায় দুদলই। জার্মানি ৩-৪-৩ ফরমেশনে মাঠে নেমে আহত বাঘের মতো একের পর এক আক্রমন করতে থাকে ফ্রান্সের গোলে কিন্তু গোল করতে পারেন নি কোনো জার্মান ফরোয়ার্ড। কাউন্টার এটাক থেকে গোলের সুযোগ তৈরি করে ফ্রান্সও, ৫১মিনিটে ইউভেন্তাস তারকা আদ্রেইন র্যাবিওটের শট বারে লেগে ফিরে এলে গোল বঞ্চিত হয় ফ্রান্স। পরের মিনিটেই সার্জ গ্যানাব্রির শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে গেলে বেঁচে যায় ফরাসিরাও। জার্মানি প্রভাব বিস্তার করে খেলতে থাকলেও থেকে থেকেই এমবাপ্পের জার্মানি গোলমুখি ডিফেন্সভেদি দৌড় জার্মানির বুকে কাঁপন ধরিয়েছে। ৮৩মিনিটে এমবাপ্পে-বেনজেমা জুটি গোল করলেও রেফারি অফসাইডে বাতিল করেন। ম্যাচ শেষের ৩মিনিট আগে ফ্রান্স ডি-বক্সের সামনে ম্যাচে নিজেদের তৃতীয় ফ্রিকিক পায় জার্মানি। টনি ক্রুশের মতো লিরয় সানেও ব্যার্থ হন গোল করতে। ম্যাচের বাকি সময় কারও পা থেকেই কোন গোল না আসায় ম্যাচে ফেরা হয়নি জার্মানির।
ছবিঃ টুইটার
ছবিঃ টুইটার
এই হারে ফ্রান্সের সাথে টানা ৬ম্যাচ জয়হিন থাকলো জার্মানি। ২০১৮ বিশ্বকাপের পর বড় টুর্নামেন্টে তাদের খারাপ দশাও দৃশ্যমান। ইউরো ট্রফির আশা বাঁচিয়ে রাখতে এবং গ্রুপ অব ডেথ থেকে পরের রাউন্ডে কোয়ালিফাই করতে জার্মানির সামনে ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া কোন উপায় নেই।
- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img