NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১৮ আগস্ট ২০২২, বৃহস্পতিবার

ইতালি নাকি স্পেন; কে যাবে ফাইনালে?

- Advertisement -

ফুটবল জীবনের গল্প বলে, ফুটবল সংগ্রামের গল্পও বলে। গল্পের ভেতরের গল্প, লড়াইয়ের গল্প। ইউরোপের স্পেন-ইতালির ম্যাচ আবার সেই লড়াইয়ের গল্পই বলে। ফুটবল শিল্পীদের ভাষায় “ওয়ান অফ দ্য গ্রেটেষ্ট রাইভালারি ইন ইউরোপ”। মজার ব্যাপার, শেষ তিন ইউরোতে, একে অপরের বিদায়ের কারনটাও তারাই। দুই হাজার আট আর বারোতে ইতালির বিদায় স্পেনের কাছেই হেরে, সবশেষ আসরে স্পেনের পথের কাঁটা আবার ইতালি।

আটের ইউরোতে ইতালিকে হারিয়েছিল স্পেন, কোয়ার্টারে, টাইব্রেকারে। পরের আসরে ইতালি হেরেছিল ফাইনালে। পরপর দুই আসরে হারের বদলা তারা নিয়েছিল, সবশেষ আসরের দ্বিতীয় রাউন্ডে স্পেনকে বিদায় করে। দুদলের ইউরোর রোমাঞ্চ আবার ফিরছে সবুজ গালিচায়, ওয়েম্বলিতে মঙ্গলবার মধ্যরাতে, সেই ইউরোর সেমিফাইনালে।

দুদলের শক্তির জায়গা কোথায়?

ইতালির শক্তি তাদের জমাট রক্ষণ, সঙ্গে দুর্দান্ত মাঝমাঠ । ইউরোর অন্যতম সেরা মাঝমাঠ ইতালির। মার্কো ভেরাত্তি-জর্জিনিও-নিকোলো বারেলাদের মাঝমাঠের সৃজনশীলতা, বল কন্ট্রোল কিংবা পজিশনিংয়ের ক্ষেত্রে দারুন মাথার কাজ- অন্যদের থেকে এগিয়ে রাখছে ইতালিকে। মাঝমাঠকে ভরোসা জোগাচ্ছেন দুই বর্ষীয়ান ডিফেন্ডার জর্জ কিয়েলিনি-লিওনের্দো বেনুচ্চি। গোলবারের নিচে জিয়ানলুইজি দনারুমার অসাধারণ পারফর্ম্যান্স শিরোপা জয়ের স্বপ্নকেই শুধু বড় করছে। পিছিয়ে নেই স্পেনও, কোকে-পেদ্রি-বুসকেটসের মাঝমাঠের জম নিশ্চই ইতালির চোখ রাঙ্গাচ্ছে, “ম্যাচটা অত সহজ হচ্ছে না”। স্পেনের আশার বেলুন ওড়াবে, আলভারো মোরাতা- পাবলো সারাবিয়াদের গোলস্কোরিং অ্যাবিলিটি।

দুদলের দুর্বলতা কোথায়?

জমাট রক্ষণ দিয়ে ইতোমধ্যে সবার নজর কেড়েছে ইতালি, তবে ইতালি কোচের কপালে চিন্তার ভাঁজ! চলতি ইউরোতে ইতালির সবচেয়ে সেরা লিওনের্দো স্পিনাজোলাকে ইনজুরির কারনে স্পনের বিপক্ষে পাবেননা তিনি। স্পেনের বড় ভয়, তাদের রক্ষণ। এমরিক লাপোর্তা আশা জাগাচ্ছেন, বাকিরা শুধুই নিজেদের ছায়া।

এক্স ফ্যাক্টর হতে পারেন কারা?

করোনার কারনে এমনিতেই পাঁচজন খেলোয়াড় পরিবর্তন করতে পারে প্রতিটা দল, এক্সট্রা টাইমে গেলে সেই সংখ্যাটা হয়ে যায় ছয়। রবার্তো মানচিনি-লুইস এনরিকে সেই সুযোগটাই নিচ্ছেন। ম্যাচের সময় যত গড়ায়, ‘ফ্রেশ লেগ’ দিয়ে প্রতিপক্ষের সঙ্গে ততোটাই টেক্কা দেন তারা। অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে ইতালির জয়ের নায়ক দুই ‘সুপার সাব’, ফেদ্রিকো কিয়েসা-মাতেও পেসিনা। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে স্পেনকে জেতানো মাইকেল অর্জাবাল-পাও তোরেসরাও শুরুতে বেঞ্চ গরম করেছেন । যাদের কারো বয়সই আবার পঁচিশ পেরোয়নি।

দুদলের সবশেষ রেকর্ড

দুদলের শেষ ১৪ দেখায় মাত্র দুইবার স্পেনকে হারিয়েছে ইতালি, যার শেষটা আবার ইউরোর সবশেষ আসরে। মাঠে নেমেই রেকর্ডের অংশ হবে দুদল, বৈশ্বিক আসরে ইউরোপের মধ্যে সবথেকে বেশি ম্যাচে মুখোমুখি ইতালি-স্পেন। ইউরোতে যেটা দুদলের আবার সপ্তম দেখা।

ভালবাসার শুদ্ধতম অনুভুতি অপেক্ষা। আপনি ফুটবলকে ভালোবাসলে, আপনাকেও করতে হবে অপেক্ষা। ইতালি-স্পেনের বিখ্যাত লড়াইয়ের শেষ বাঁশি বাজা পর্যন্ত।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img