৩১ জানুয়ারি ২০২৩, মঙ্গলবার

ইনজুরিতে শেষ শুবমান গিলের ইংল্যান্ড সফর

- Advertisement -

পায়ের ইনজুরিতে শুবমান গিল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম দুই টেস্ট খেলতে পারবেননা তা আগেই জানা গিয়েছিল। এবার খবর এলো পায়ের ইনজুরিতে ৫ ম্যাচের পুরো সিরিজই শেষ গিলের। গিল শীগ্রই দেশে ফিরে বিসিসিআইয়ের অধীনে করাবেন চিকিৎসা।

২১ বছর বয়সী শুবমান গিলের টেস্ট ক্যারিয়ার বেশ চড়াই উৎরাইয়ের মধ্যেই গেছে এই পর্যন্ত। টেস্ট ক্যারিয়ারের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ার মাঠে ৯১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন, দেশের মাটিতে ইংল্যান্ডের মাটিতেও করেছিলেন একটি হাফ সেঞ্চুরি। আইপিএল থেকেই রানখরার মধ্যে দিয়ে যাওয়া গিল ভারতের প্রথম পছনের ওপেনারই ছিলেন ইংল্যান্ডের। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের দুই ইনিংসে গিল করেন ২৮ ও ৮ রান, এরপরই দলে গিলের যায়গা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। অবশেষে, ইনজুরিতে শেষই হয়ে গেলো গিলের ইংল্যান্ড স্বপ্ন।

 

বিসিসিআই সূত্র ভারতীয় গনমাধ্যমকে বলেছে, “শুবমান গিল পায়ের ইনজুরিতে পুরো ইংল্যান্ড সিরিজই মিস করছে, তার ইনজুরি ভালো হতে কমপক্ষে ৩ মাস সময় লাগবে। দলের ম্যানেজার কিছুদিন আগে প্রধান নির্বাচককে দুজন ব্যাকাপ ওপেনার চেয়ে ইমেইলও করেছিলেন”  ভারতের সাবেক উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান সাবা করিম মনে করেন গিল তার ইনিজুরি লুকিয়েছিলেন এবং এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে নিজের অবাক হওয়ার কথাও বলেন। গিলের ৩ মাসের মাঠের বাইরে থাকার ফলে তিনি আইপিএলের বাকি অংশও মিস করবেন।

দলে মায়াংক আগারওয়াল আর কে এল রাহুলের মতো দুজন ওপেনার থাকার পরও ম্যানেজম্যান্ট আরও দুজন ওপেনার চেয়ে পাঠানোয় ভারতে সমালোচনাও হচ্ছে বেশ। প্রধান নির্বাচক চেতন শর্মা স্বীকার না করলেও বিসিসিআই সূত্র ম্যানেজমেন্টের ওপেনার হিসেবে পৃথ্বি শ আর দেবদূত পাড্ডিকালকে চাওয়ার কথা বলেছেন, “ বিসিসিআই সভাপতি পৃথ্বি আর দেবদূত কে চেয়ে কোনো অফিসিয়াল ইমেইল পাননি। তবে তারা এখন সাদা বলের সিরিজ খেলতে শ্রীলংকায় আছে এবং সেই সিরিজ শেষ হওয়ার পর তাদের ইংল্যান্ড পাঠানো সম্ভব। আমার মনেহয় ম্যানেজমেন্ট ওদের ডারহামে বায়োবাবলে ঢোকার আগেই দলে চায়।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img