NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার

একাদশে ফিরছেন ডি কক!

- Advertisement -

আগামী ম্যাচ হতেই জাতীয় দলের জার্সিতে মাঠে নামতে প্রস্তুত সাউথ আফ্রিকান উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক। ‘ব্ল্যাক লাইভ ম্যাটারস’ ইস্যুতে হাঁটু গেড়ে প্রতিবাদ জানাতে দ্বিমত পোষণ করায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে একাদশে ছিলেন না কুইন্টন। কিন্তু, গত কয়েক ঘন্টায় দলের সকলকে নিয়ে বোর্ডের আবেগঘন আলোচনায় ভুল ভেঙ্গেছে প্রোটিয়া তারকার। সতীর্থ এবং ভক্ত-সমর্থকদের নিকট ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন তিনি।

“আমি কখনোই চাইনি এটা কুইন্টন ইস্যুতে পরিণত হোক। যদি আমার হাঁটু গেড়ে প্রতিবাদে অন্যরা অনুপ্রাণিত হয়, সুখ অনুভব করে, তাহলে আমি ভীষণ খুশিমনেই এটা করতে প্রস্তুত”- বলছিলেন কক

ডি কক এতদিন বুঝতে পারছিলেন না প্রতিবাদ করে নিজের অনুভূতি জানানোর কি রয়েছে! নিজেই অকপটে স্বীকার করেছেন সেই কথা, “আমি বুঝতে পারছিলাম না বর্ণবৈষম্যের ব্যাপারে নিজের অনুভূতি এভাবে কেন প্রকাশ করতে হবে। তাছাড়া টুর্নমেন্টের শুরুতে আমাদের বলেও দেয়া হয়নি এটা বাধ্যতামূলক। সকলকেই স্বাধীনতা দেয়া হয়েছিল”

নিজের অবস্থান আরো ভালোমতো বোঝাতে সাউথ আফ্রিকান উইকেটকিপার বলেছেন, “আমি এতদিন এই বিষয়ে চুপ ছিলাম। কিন্তু, আমার মনে হয়, এবার আমার নিজেকে কিছুটা প্রকাশ করা উচিত। যারা জানেন না তাদের জানাতে চাই, আমি নিজেও মিশ্র জাতি পরিবার থেকে এসেছি। আমার সৎ বোন সাদা রঙের অধিকারিণী এবং আমার সৎ মা কালো। আমার কাছে ব্লাক লাইভ তখন থেকেই ম্যাটার করে যখন আমি জন্মেছি।“

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে না খেলায় সমালোচনার জন্ম হয়েছে অনেক। ডি ককের নামের সাথে জড়িয়েছে ‘বর্ণবাদী’ খেতাবও।  সেই বিষয়ে বলতে গিয়ে ডি কক বলেছেন, “আমাকে বিভিন্ন অকথ্য ভাষায় গালাগালি করা হচ্ছে। কিন্তু, এসব আমাকে ততোটাও কষ্ট দেয়নি যতটা পেয়েছি আমাকে বর্ণবাদী বলাতে। আমার পরিবার কষ্ট পেয়েছে, আমার গর্ভবতী স্ত্রী কষ্ট পেয়েছে। আমি বর্ণবাদী নই”

সবার শেষে কুইন্টন ডি কক বলেন, “যদি অধিনায়ক, দল এবং দক্ষিণ আফ্রিকা আমাকে চায়, তাহলে আমি দেশের হয়ে আবার ক্রিকেট খেলতে পছন্দ করবো”

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img