১ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার

কাতার বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় আপসেট, সৌদির সাথে হারলো আর্জেন্টিনা!

- Advertisement -

১০ মিনিটে পেনাল্টি থেকে মেসির গোলের পর আর্জেন্টিনা নয়, উজ্জীবিত দলটার নাম ছিলো সৌদি আরব। হাই লাইন ডিফেন্স সাজিয়ে ফাঁদ পেতে আর্জেন্টাইনদের আক্রমণ আটকানোর কৌশল বেশ ভালই কাজে লাগিয়েছে এশিয়ানরা। লাউতারো মার্তিনেজের দুইটি আর আর মেসির এক, তিন গোল বাতিল হয়েছে অফসাইডে। পাঁচ জনের সৌদি মিডফিল্ড ভাঙ্গতে গিয়ে বারেবারেই বেগ পেয়েছে আর্জেন্টিনা।

গোলের পর লিওনেল মেসি

৬৪ শতাংশ বলের দখল, সৌদির ১৫৯ পাসের বিপরীতে ২৮৫ পাস দেয়া দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সেরা ছন্দে পাওয়া যায়নি প্রথম ৪৫ মিনিটে। লেফট উইংয়ে পাপু গোমেজ ছিলেন বেশ অকার্যকর, নিজের ছায়া হয়ে থেকেছেন ডি মারিয়া। বারবার জায়গা বদলে মেসিই চেষ্টা করেছেন কার্যকর কিছু আক্রমণ তৈরী করার।

সৌদি আরব বলের দখলে কিছু সময় ভাল করলেও ডি-বক্সের আশপাশে গেলেই খেই হারিয়েছে। গোল করা তো দূরের কথা, একটা শট পর্যন্ত নিতে পারেনি, মনে করিয়ে দিয়েছে সেই পুরোনো কথা, “ইফ ইউ ডোন্ট শুট, ইউ ডোন্ট স্কোর” তবে প্রথমার্ধে মেসিদের এ গোলে আটকে রাখা সৌদির সাফল্যই বটে যার প্রমাণ দিয়েছেন তিন ফুটবলার; বিরতিতে যাবার আগে মাঠ ছেড়েছেন সিজদা দিয়ে!

ম্যাচের পরিস্থিতি ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে যায় দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই। ৬ মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে বসে সৌদি আরব। ৪৮ মিনিটে মিডফিল্ডে বল হারায় আর্জেন্টিনা। সেখানে থেকেই কাউন্টার অ্যাটাক। সালেহ আল শেহরির শট চলে যায় জালে, ম্যাচে সৌদি আরবের প্রথম শটটাই গোল।

গোলের পর সালেহ আল শেহরি

দ্বিতীয় গোলটাও আর্জেন্টিনা রক্ষণ আর গোলকিপারের ভুলে। পেছন থেকে পাস দিয়ে খেলা গোছাতে গিয়ে ভুল পাস দিয়ে বসে আর্জেন্টিনা। প্রতিপক্ষ বল পেয়েই গোলে শট নেয়, গোলকিপার ঠেকিয়ে দেয়ার পরেও বলের নিয়ন্ত্রণ থাকে সালেম আলদাউসারির কাছে। ডি-বক্সের ভেতরের বামদিক থেকে বাঁকানো শটে খুঁজে নেন আর্জেন্টাইন গোলের ডানদিকের টপকর্নার, দুই গোলের লিড পায় সৌদি আরব।

সৌদি আরবের দুই গোল স্কোরার একসাথে

এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি আর্জেন্টিনা। ২-১ গোলে হারের হতাশা নিয়ে মাঠ ছেড়েছে লিওনেল মেসির দল। এটাই বিশ্বকাপের ইতিহাসে আর্জেন্টিনার বড় আপসেট।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img