২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

কিউই দলে বর্ণবাদের শিকার হতেন টেলর

- Advertisement -

দীর্ঘ ১৬ বছরের ক্যারিয়ার শেষে গত এপ্রিলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন নিউজিল্যান্ডের রস টেলর। অবসর নেয়ার চার মাস পর নিজের আত্মজীবনী ‘রস টেলর ব্ল্যাক অ্যান্ড হোয়াইট’ বইয়ে দাবি করেছেন, জাতীয় দলে থাকাকালীন সময়ে সতীর্থদের দ্বারা তিনি বর্ণবাদের শিকার হয়েছেন। যদিও কে বা কারা টেলরের সাথে বর্ণবৈষম্যমূলক আচরণ করেছে তা নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানাননি।

নিজের আত্মজীবনীতে টেলর লিখেছেন, “নিউজিল্যান্ডে ক্রিকেট শ্বেতাঙ্গদের খেলা। আমার ক্যারিয়ারের বেশিরভাগ সময়ই আমি আমার সতীর্থদের কাছে বর্ণবাদের শিকার হয়েছি। আমি তাদের চেয়ে আলাদা ছিলাম, যেন ভ্যানিলার মতো সাদা ফুলের লাইনআপে বাদামি মুখ। পলিনেশিয়ান সম্প্রদায় থেকে এসে এ খেলায় প্রতিনিধিত্ব করেছি, এতে সম্ভবত অবাক হওয়ার কিছু নেই যে লোকেরা মাঝে মাঝে ধরে নেয় আমি মাওরি বা ভারতীয়।”       

“অনেকভাবেই ড্রেসিংরুমে আমাকে বর্ণবাদের শিকার হতে হয়েছে। একজন সতীর্থ আমাকে বলতেন, ‘তুমি অর্ধেক ভালো লোক, রস।’ কিন্তু কোন অর্ধেক ভালো? আমি কী বোঝাচ্ছি সেটা তুমি জানো না। কিন্তু আমি বুঝে নিতাম। একজন পাকেহা (শ্বেতাঙ্গ অধিবাসী) এই ধরণের মন্তব্য শুনে ভাববে, ‘ওহ, ঠিক আছে, এটা একটু আড্ডাবাজি।’ কিন্তু সে এটাকে একজন সাদা ব্যক্তি হিসাবে শুনছেন এবং এটা তার মতো লোকেদের জন্য কোনো ব্যাপারই নয়। সুতরাং, কোনো পুশব্যাক নেই; কেউ তাদের সংশোধন করে না”-তিনি আরও জানান         

টেলরের এমন অভিযোগের পর নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের (এনজেডসি) একজন মুখপাত্র কিউই সংবাদমাধ্যম ‘নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডকে’ জানান: “এনজেডসি বর্ণবাদের নিন্দা করে এবং এই ধরনের আচরণের কথা রস প্রকাশ করার পর আমরা গভীরভাবে হতাশ। আমরা অবশ্যই তদন্ত করব। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে টেলরের সাথে যোগাযোগ করব।”      

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img