৭ ডিসেম্বর ২০২২, বুধবার

ঘরের মাঠে স্কটল্যান্ডের সাথে ইংল্যান্ডের ড্র

- Advertisement -

স্কটল্যান্ডের সাথে জিততে পারলোনা ইংল্যান্ড। ইউরোতে শুক্রবার রাতে ঘরের মাঠ ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে স্কটিশদের সাথে গোলশুন্য ড্র করে থ্রি-লায়ন্স রা।

শুক্রবার বিকালে ইউয়েফা জানায় ফাইনালের ভেন্যু থেকে নাম কাটা যেতে পারে লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে। এই গুঞ্জনের মাঝেই বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় ওয়েম্বলিতেই মাঠে নামে দুই প্রতিবেশি দেশ স্কটল্যান্ড ও ইংল্যান্ড। খেলার ৪ মিনিটেই ইংল্যান্ডের গোলমুখে সাউদ্যাম্পটন তারকা এডামস শট নিয়ে জানিয়ে দেন স্কটল্যান্ড ছেড়ে কথা বলবেনা ইংল্যান্ডকে। ইংল্যান্ড অবশ্য ম্যাচের ১১ মিনিটেই পেয়ে যেত গোলের দেখা। মেসন মাউন্টের কর্নার থেকে ম্যানসিটি ডিফেন্ডার জন স্টোনসের হেডার পোস্টে লেগে ফিরে এলে গোলের দেখা পায়নি ইংলিশরা। স্কটল্যান্ডের প্রথমহাফের সবচেয়ে বড় সুযোগ আসে ৩০ মিনিটে। লিভারপুল তারকা স্কটল্যান্ড অধিনায়ক রবার্টসনের বাড়ানো বল থেকে স্টিফেন ও’ডোনেল জোড়ালো শট করেন ইংলিশদের গোলমুখে, কিন্তু থ্রি-লায়ন্স নাম্বার ওয়ান শার্ট পিকফোর্ড চমৎকার সেভে বিপদপমুক্ত করে ইংল্যান্ডকে, ফিরিতি শটে এডামসও টার্গেটের বাইরে মারেন বল। দুই দলই তাদের সুযোগ পেলেও প্রথমহামে দুদল মিলে গোলমুখে শট হয় ও’ডোনেলের ওই একটিই।

প্রথমার্ধের মতো বিরতির পরও শুরুতেই স্কটল্যান্ডের গোলমুখে আক্রমন চালায় থ্রি-লায়ন্সরা। ৪৮ মিনিটে মেসন মাউন্টের শট কর্নারের মাধ্যমে ক্লিয়ার দেন ডার্বি কাউন্টির স্কটিশ গোলি ডেভিড মার্শাল। শুরুর এই চিত্র অবশ্য পুরো দিনের কথা বলেনি এদিন। ম্যাচের বাকি সময় স্কটল্যান্ড কিপার কে আর কোনো পরিক্ষায় ফেলতে পারেনি হ্যারি কেইন, মেসন মাউন্ট, রহিম স্টার্লিং, ফিল ফোডেনরা। উলটা দুবার লিড নেয়ার খুব কাছে চলে যায় স্কটিশ রা। জর্ডান পিকফোর্ডের কল্যানে ঘরের মাঠে এদিন হারতে হয়নি ইংল্যান্ড কে। খেলায় ১ ঘন্টা পেরোনোর ঠিক ২ মিনিট পর টাইরন মিংসের গোল লাইন ক্লিয়ারেন্সে গোল বাঁচায় ইংলিশরা। স্কটল্যান্ডের পাওয়া কর্নার থেকে রবার্টসনের ক্রস গ্র্যান্ট হ্যানলি হয়ে লিন্ডন ডাইকসের পায়ে আসলে গোলে শট করেন কুইন্স পার্ক রেঞ্জার্স স্ট্রাইকার। কিন্তু মিংসের দারুন ক্লিয়ারেন্সে গোল বঞ্চিত হয় স্কটল্যান্ড। ৭৮ মিনিটে আবারও রবার্টসনের ক্রস থেকে গোলের সুযোগ পায় স্কটিশ রা। অ্যাডামসের ভলি বাইরে দিয়ে গেলে ইংল্যান্ড দর্শ্কেরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে। ইংল্যান্ডের ঘরের মাঠে এদিন তাই ভালো খেলে এক পয়েন্ট আদায় করে মাঠ ছাড়ে স্কটল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে জয়ের পর এই ম্যাচে ড্রয়ে ‘ডি’ গ্রুপের ২ নাম্বারে থেকে সেকেন্ড ম্যাচ ডে শেষ করলো ইংল্যান্ড।

প্রতি বৈশ্বিক আসরের মতো এবারও ইংলিশ মিডিয়া এবং সমর্থকদের প্রত্যাশা ইউরো জিতবে ইংল্যান্ড, সবার প্রত্যাশা মিটিয়ে ১১ জুলাই ওয়য়েম্বলির ফাইনাল খেলতে হলে ইংল্যান্ড কে যে তাদের খেলার মান আরও বাড়াতে হবে তা বলে দেয়াই যায়।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img