১৪ জুন ২০২৪, শুক্রবার

‘চার’ রানের আক্ষেপে পুড়ছেন তামিম ইকবালও!

- Advertisement -

নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রান করাটা অনেক কঠিন। সেটা এতটাই কঠিন যে সাউথ আফ্রিকার মতো দল আটকে যায় ১১৩ রানেই। তখনই বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তরা মনে আশা জাগাচ্ছিল প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি জয়ের। তবে সে আশায় জল ঢেলেছে আম্পায়ারের একটি সিদ্ধান্ত।

সোমবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে সাউথ আফ্রিকার কাছে ৪ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। প্রোটিয়াদের দেয়া ১১৩ রান তারা করতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে ১০৯ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। তবে, ফলাফল ছাপিয়ে আলোচনায় এখন আম্পায়ারিং ইস্যু।  আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন টাইগার ক্রিকেটার তামিম ইকবালও। আইসিসির এই নিয়ম নিয়ে ক্রিকবাজে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে টাইগার ব্যাটার বলেন, “আম্পায়ারের কাছে সময় ছিল, সে অপেক্ষা করতে পারত চার হয়েছে কি হয়নি দেখার জন্য, তারপর সে সিদ্ধান্ত নিতে পারতো। যদি ব্যাটসম্যান আউট না হয় এবং বল বাউন্ডারির বাইরে চলে যায় তাহলে এটার রান দেয়া উচিত।” 

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে টাইগারদের হারের ব্যবধান ছিল চারটি রান। মাহমুদউল্লাহর সেই চার রান স্কোরবোর্ডে যুক্ত হলে ফলাফল টাইগারদের ভাগ্য বদলে দিতে পারতো এমনটাই মনে করেন তামিম, “যদি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত সঠিক হত তাহলে এই চার রান দেয়ার প্রশ্নই আসে না। তবে এই চারটা রান বাংলাদেশের ভাগ্য বদলে দিতে পারতো। যদিও আমি একজন ভক্তের মত কথা বলছি, কিন্তু আপনি যদি চিন্তা করেন ওই চারটা রান অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল।” 

ঘটনাটি ম্যাচের ১৭তম ওভারের। পেসার ওটনিল বার্টম্যানের বল মাহমুদউল্লাহর পায়ে লেগে চলে যায় বাউন্ডারির বাইরে। বল বাউন্ডারি লাইন পার করার আগেই অবশ্য এলবিডব্লুর আবেদনে আঙুল তুলে দেন আম্পায়ার স্যাম নোগাস্কি। এরপর মাহমুদউল্লাহ রিভিউ নিলে দেখা যায়, বল স্টাম্পে আঘাত করেনি। আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত তাই পাল্টে যায়। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী, আম্পায়ার আউট দেওয়ার পর বল ডেড হয়ে যাওয়ায় লেগ বাই হিসেবে ৪ রান পায়নি বাংলাদেশ। আর এ নিয়েই সমালোচনা চলছে ভক্তমহল থেকে শুরু ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ পাড়ায়।

বাংলাদেশের ম্যাচ হারের কারণ হিসেবে আম্পায়ার স্যাম নোগাস্কিকেই দুষছেন দেশের ক্রিকেটভক্তরা। সাবেক ক্রিকেটারদের মুখেও আম্পায়ারিং এর সমালোচনা। যদিও ডেডবল সংক্রান্ত ক্রিকেটের আইন কথা বলছে আম্পায়ারের পক্ষেই।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img