২৪ জুন ২০২৪, সোমবার

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রাতে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দুই ফাইনালিস্ট

- Advertisement -

রিয়াল মাদ্রিদ-লিভারপুল ম্যাচের আগে ঘুরেফিরে এসেছিলো ২০১৮’র ফাইনালের কথা। এবার বায়ার্ন মিউনিখ-পিএসজি ম্যাচের আগে ঠিকই একই আলোচনা, আবারও দুই ফাইনালিস্টের দ্বৈরথ। কোয়ার্টার ফাইনাল ড্র হওয়ার পর থেকেই আলোচনা সবশেষ ফাইনাল নিয়ে। পিএসজিকে ১-০ গোলে হারিয়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মান জায়ান্টরা।

বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কোয়ার্টার ফাইনালের হোম ম্যাচ। কিন্তু বাভারিয়ানদের কোচের কপালে চিন্তার ভাজ। ইনজুরির থাবা ম্যাচের আগে। গেল বছরের বর্ষসেরা ফুটবলার রবার্ত লেভানডফস্কি চোটে ছিঁটকে গেছেন। ইনজুরি তালিকায় যুক্ত হয়েছেন মিডফিল্ডার মার্ক রোকা, আছেন ডগলাস কস্তাও। করোনা পজিটিভ হওয়ায় খেলতে পারবেননা উইঙ্গার সের্জে জিনাব্রি। তার পরিবর্তে দলে জায়গা পাচ্ছেন সানে।

তবে এই ম্যাচে বায়ার্নের রক্ষণ হবে শক্ত প্রাচীর। সবশেষ লিগ ম্যাচ মিস করা দুই ডিফেন্ডার জেরোম বোয়েটিং এবং আলফানসো ডেভিস ফিরছেন কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে। বুন্দেসলিগায় চ্যাম্পিয়নের পথে আছে বায়ার্ন। শেষ ষোলতে লাৎসিওকে উড়িয়ে দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে বাভারিয়ানরা। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা ১৯ ম্যাচে অপরাজিত জার্মান জায়ান্টরা। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে টানা ২৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড আছে শুধু ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের।

ফরাসী ক্লাব পিএসজির সামনে গেলবার ফাইনালে হারার প্রতিশোধ নেয়ার সুযোগ। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে করোনার হানা পিএসজি শিবিরে। ইকার্দি, আলেস্সান্দ্রো ফ্লোরেন্সি এবং মার্কো ভেরাত্তিকে ছাড়াই একাদশ নামাতে হবে কোচ পচেত্তিনোকে। তবে আক্রমণ ভাগে সেরাদের পাচ্ছেন, নেতৃত্ব দিবেন এমবাপ্পে এবং নেইমার। ম্যাচের আগে সংবাদ মাধ্যমকে পিএসজি কোচ জানিয়েছেন-এই ম্যাচকে তারা প্রতিশোধের মিশন হিসেবে দেখছেনা।

“তাছাড়া এবার খেলা দুই লেগের, প্রেক্ষাপট ভিন্ন। খেলায় প্রতিশোধ আছে, কিন্তু আমাদের জন্য এই ধরনের শক্তিশালী দল, যারা সম্ভবত বিশ্বের সেরা, তাদের হারানো আরও বড় চ্যালেঞ্জের। এটাই অনুপ্রেরণার উৎস।”

ম্যাচের আগে পরিসংখ্যানটাও সামনে চলে আসে। দু’দল দশবার মুখোমুখি হয়েছে টুর্নামেন্টে। ৫ বার জয় পিএসজির, বায়ার্নের চারবার। গতবারের ফাইনাল বাদ দিলে নকআউট পর্বে তাদের দ্বিতীয় দেখা হতে যাচ্ছে।

একই সময় অপর কোয়ার্টার ফাইনালে পর্তুগালে মুখোমুখি হবে এফসি পোর্তো এবং ইংলিশ ক্লাব চেলসি। ম্যাচের আগে স্বস্তিতে আছেন চেলসি কোচ টমাস টুখেল। পূর্ণ শক্তির দল পাচ্ছেন। ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিস, কান্তে এবং ট্যামি আব্রাহাম ফিরছেন। অলিভিয়ের জিরুতো থাকছেনই আক্রমণের ভার সামলাতে। যদিও সবশেষ লিগ ম্যাচে ওয়েস্ট ব্রমের কাছে হেরে আত্মবিশ্বাসটা তলানিতে পৌছেছে ব্লুজদের। অপরদিকে-পুর্তগিজ ক্লাব পোর্তোর কোচের চিন্তা স্ট্রাইকারদের নিয়ে। সেরা দুই গোলস্কোরার সার্জিও অলিভিয়েরা এবং তারেমিকে ছাড়াই দল মাঠে নামাতে হচ্ছে। দু’জনই কার্ড সমস্যায় খেলতে পারবেননা।

দুই ক্লাব চ্যাম্পিয়ন্স লিগে মুখোমুখি হয়েছে ৮ বার। চেলসির জয় ৫টায় আর দুইটা জিত আছে পোর্তোর। অন্য ম্যাচটা ড্র হয়।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img