৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, শুক্রবার

জাতীয় লিগ ২০২১: প্রথম দিনটি বোলারদের!

- Advertisement -

করোনা মহামারির পর প্রথম অনুষ্ঠিত হচ্ছে জাতীয় লিগ। ২৩ তম এই আসরের প্রথম দিনে মাঠে গড়িয়েছে চারটি ম্যাচ। চার ম্যাচেই দেখা গেছে বোলারদের আধিপত্য। একটি ম্যাচে তো ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে তৃতীয় ইনিংসও।

ঢাকা বনাম সিলেট ম্যাচে ঘরের মাঠে সুবিধা করতে পারেনি সিলেট বিভাগ। টসে জিতে অলক কাপালির ব্যাটিং করার সিদ্ধান্তটাকে ভুল প্রমাণ করেছে ইমতিয়াজ হোসাইন-জাকির হোসেনদের নিয়ে সাজানো সিলেটের ব্যাটিং লাইনআপ। নাজমুল ইসলাম অপুর বোলিং তোপে মাত্র ৬৭ রানেই গুটিয়ে গিয়েছে সিলেট। ৮ ওভারে ২৩ রান দিয়ে ৬টি উইকেট নিয়েছেন অপু; ১৮ রানে তিনটি নিয়েছেন শুভাগত হোম চৌধুরী। সিলেটের হয়ে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সর্বোচ্চ ১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন রাহাতুল ফেরদৌস।

নাজমুল ইসলাম অপু নিয়েছেন ৬ উইকেট

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৭৬ রানেই থেমেছে ঢাকা বিভাগের প্রথম ইনিংসও। অর্ধশতক তুলে নিয়েছেন শুভাগত হোম; উইকেটকিপার মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনের ব্যাট থেকে এসেছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৭ রান। সিলেটের হয়ে এনামুল হক জুনিয়র নিয়েছেন ৪টি উইকেট; পেসার এবাদত হোসেনের সংগ্রহ ৩টি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১ উইকেটে হারিয়ে ৩৫ রান সংগ্রহ করে দিন শেষ করেছে সিলেট। ২২ রানে অপরাজিত আছেন ইমতিয়াজ হোসাইন; একমাত্র উইকেটটি তুলে নিয়েছেন শুভাগত হোম।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর: সিলেট প্রথম ইনিংস: ৬৭/১০ (রাহাতুল ফেরদৌস- ১৮, নাজমুল অপু- ৬/২৩); ঢাকা প্রথম ইনিংস: ১৭৬/১০ (শুভাগত হোম-৫০, এনামুল হক জুনিয়র- ৪/৬৬); সিলেট দ্বিতীয় ইনিংস: ৩৫/১ (ইমতিয়াজ হোসাইন- ২২*, শুভাগত হোম- ১/১৪)

সিলেটেই অপর খেলায় খুলনার বিপক্ষে দারুণ শুরু করেছে রংপুর। ৮ উইকেট হারিয়ে ২২৬ রানে দিন শেষ করেছে নাইম ইসলামের দল। রান পেয়েছেন নাসির হোসেন (৩২); সর্বোচ্চ ৪০ রান এসেছে বাহাতি ব্যাটসম্যান জাহিদ জাভেদের ব্যাট থেকে। খুলনার হয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ নিয়েছেন ৪টি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: রংপুর প্রথম ইনিংস- ২২৬/৮ (জাহিদ জাভেদ-৪০, মাহমুদুল হাসান- ৩৪, নাসির হোসেন- ৩২; মেহেদি হাসান মিরাজ- ৪/৮১, আল আমিন হোসেন- ৩/৪৫)

কক্সবাজারে বরিশালের বিপক্ষে দুর্দান্ত সময় পার করেছেণ ঢাকা মেট্রোর জাতীয় দলের ওপেনার সাদমান ইসলাম (৭৫)। বাকিরা রানের দেখা না পাওয়ায় ঢাকা মেট্রোর ইনিংসটা শেষ হয়েছে ২৩৯ রানেই। মোহাম্মদ শরিফুল্লাহ করেছেন ৫৯, আবু হায়দার রনির ব্যাট থেকে এসেছে ৩৮! বরিশালের হয়ে ৭৮ রানে ৬টি উইকেট তুলে নিয়েছেন তানভির ইসলাম; কামরুল ইসলাম রাব্বি নিয়েছেন ৪টি। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দিন শেষ করার আগে বরিশাল করেছে ৬ রান; ছয়টি রানই এসেছে মোহাম্মদ আশরাফুলের ব্যাট থেকে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংস: ২৩৯/১০ (সাদমান ইসলাম-৭৫, শরিফুল্লাহ- ৫৯; তানভির ইসলাম- ৬/৭৮, কামরুল ইসলাম রাব্বি- ৪/৪৩); বরিশাল প্রথম ইনিংস: ৬/১ (মোহাম্মদ আশরাফুল-৬*, মোহাম্মদ শরিফুল্লাহ- ১/০)

অপর খেলায় নিজেদের ঘরের মাঠে বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে চট্টগ্রাম; টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করা রাজশাহীর ১৬৬ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রাম দিন শেষ করেছে ১২৬ রানে ২ উইকেট হারিয়ে। রাজশাহীর হয়ে তৌহিদ হৃদয় (৬৮) ছাড়া সুবিধা করে নিতে পারেনি কেউই; ৪২ রানে ৪ উইকেট নিয়েছেন নাইম হাসান। সাব্বির রহমানের ব্যাট থেকে ২০ রান এলেও, নাজমুল হোসেন শান্ত ফিরেছেন ৯ রান করেই।  জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইয়াসির আলির ৭০ রানের ইনিংসের ওপর ভর করে চালকের আসনে মুমিনুল হকের চট্টগ্রাম; বাংলাদেশ অধিনায়কের ব্যাট থেকে এসেছে ৩২* রান। রাজশাহীর হয়ে দুইটি উইকেটই তুলে নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর: রাজশাহী প্রথম ইনিংস- ১৬৬/১০ (তৌহিদ হুদয়-৬৮, সাব্বির রহমান-২০; নাইম হাসান- ৪/৪২); চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংস: ১২৬/২ ( ইয়াসির আলি-৭০*, মুমিনুল হক- ৩২*; তাইজুল ইসলাম- ২/৪৬)

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img