২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

বাংলাদেশের জিততে দরকার সাত উইকেট

- Advertisement -

হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেষ্টে জয়ের ঘ্রাণ পাচ্ছে বাংলাদেশ। চতুর্থ দিনশেষে জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৪০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৪০ রান। জয় পেতে জিম্বাবুয়ের এখনও প্রয়োজন ৩৩৭ রান। ১৮ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন দিওন মায়ার্স, ৭ রান করে তার সঙ্গী নাইটওয়াচম্যান ডোনাল্ড তিরিপানো।

এর আগে চতুর্থ দিন দুর্দান্ত ব্যাটিং করে বাংলাদেশ। সেঞ্চুরি তুলে নেন ওপেনার সাদমান ইসলাম এবং তিন নম্বরে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত। এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটের উপর ভর করে জিম্বাবুয়ের সামনে বড় লক্ষ্য দাঁড়া করিয়েছে বাংলাদেশ। দুজনেই সেঞ্চুরি করার পাশাপাশি অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন।

এর আগে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৩৭ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। আগেরদিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান এবং সাদমান ইসলাম ছিলেন সাবলীল। সাইফ হাসান আউট হওয়ার আগে দুজনে মিলে গড়েছেন ৮৮ রানের জুটি। যা ২০০৮ সালের পর তামিম বিহীন দুই ওপেনারের সর্বোচ্চ রানের জুটি। ব্যাক্তিগত ৪৩ রান করে রিচার্দ এনগারাভার বলে গালিতে অভিষিক্ত দিওন মায়ার্সের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন সাইফ। পুরো দিনে জিম্বাবুয়ের সাফল্য বলতে ঐ একটাই।

সাইফ ফিরে গেলেও অপর প্রান্তে অবিচল ছিলেন সাদমান। তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম টেষ্ট সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত ১৯৬ বলে ১১৫ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। সাদমান এক প্রান্তে ধরে খেললেও আক্রমণাত্মক ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ওয়ানডে মেজাজে ব্যাট চালিয়ে তিনিও সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করার পথে তিনি অপরাজিত থাকেন ১১৮ বলে ১১৭ রান করে। শেষ পর্যন্ত ১ উইকেট হারিয়ে ২৮৪ রান করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৪৭৭।

বড় লক্ষ্যের সামনে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই প্রথম উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। দলীয় ১৫ রানে মিল্টন শুম্বাকে ফিরিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তাসকিন আহমেদ। এরপর ক্রিজে এসে বাংলাদেশের বোলারদের উপর রীতিমতো ঝড় বইয়ে দেন জিম্বাবিয়ান ক্যাপ্টেন ব্রেন্ডন টেইলর। মেহেদি হাসান মিরাজের বলে তার হাতেই ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে মাত্র ৭৩ বলে করেছেন ৯২ রান। এরপর প্রথম ইনিংসে জিম্বাবুয়ের টপ স্কোরার তাকুয়ানশে কাইতানোকে ফিরিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার আগে করেছেন ১০২ বলে ৭ রান। বাকিটা সময় নির্বিঘ্নেই কাটিয়ে দেন দিওন মায়ার্স এবং ডোনাল্ড তিরিপানো।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img