১৭ জুলাই ২০২৪, বুধবার

টাইব্রেকারে ব্রাজিলকে হারিয়ে সেমিফাইনালে উরুগুয়ে

- Advertisement -

গত বিশ্বকাপে ক্রোয়েশিয়ার কাছে টাইব্রেকারে হেরে বিদায় নিয়েছিল ব্রাজিল। কোপা আমেরিকাতেও টাইব্রেকার জুজু কাটাতে ব্যর্থ রদ্রিগোরা। কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে টাইব্রেকারে উরুগুয়ের কাছে ৪-২ ব্যবধানে হেরেছে ব্রাজিল।

ম্যাচের বয়স তখন ৭৪ মিনিট, লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেন নাহিতান নান্দেস। দশ জনের দলে পরিণত হলো উরুগুয়ে। ঠিক তখন মনে হচ্ছিল এই সুবিধাটা কাজে লাগাবে ব্রাজিল। দশজনের উরুগুয়ের বিপক্ষে বেশ কয়েকটি আক্রমণও করেছিল রাফিনিয়ারা। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোল করতে পারেনি কোনো দলই। ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। উরুগুয়ের প্রথম শটে ফেদে ভালভার্দে গোল করতে পারলেও ব্যর্থ হন রিয়াল মাদ্রিদে তার ব্রাজিলিয়ান সতীর্থ এদের মিলিতাও। এরপর মিস করেছেন ডগলাস লুইসও। তবে নাটকের তখনও বাকি, উরুগুয়ে তাদের চতুর্থ শটে গোল করতে পারলেই জিততো। কিন্তু হোসে গিমেনেজের শট রুখে দিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন আলিসন বেকার। তবে পঞ্চম শটে ঠিকই তাকে পরাস্ত করেছেন ম্যানুয়েল আর্গাতে। তাতেই টাইব্রেকারে ব্রাজিলকে ৪-২ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে উরুগুয়ে।

টাইব্রেকারে ব্রাজিলকে হারানোর পর উরুগুয়ের ফুটবলারদের উদযাপন

ম্যাচের শুরু থেকেই দাপুটে ফুটবল খেলেছে দারউইন নুনিয়েজরা। ব্রাজিলও করেছে একের পর এক আক্রমণ। তবে তা গোল পাওয়ার জন্য যথেষ্ট হয়নি। রাফিনিয়া-এন্দ্রিকদের আক্রমণগুলো উরুগুয়ের ডিফেন্ডাররা ভালোভাবেই সামাল দিয়েছে। প্রথমার্ধে কোনো গোল করতে পারেনি দুই দল। গোলশুন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় তারা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে একের পর এক আক্রমণ করে উরুগুয়ে। একটা সময় মনে হচ্ছিল, কাঙ্ক্ষিত গোলটি বুঝি পেয়েই যাবে নুনিয়েজরা। কিন্তু বাজে ফিনিশিংয়ের কারণে তা আর হয়নি। বেশ কয়েকটি ভালো সেভ করেছেন আলিসন বেকারও। তবে দশজনের দলে পরিণত হওয়ার পার আর সেভাবে ব্রাজিলের রক্ষণে ভয় ধরাতে পারেনি উরুগুয়ে। উল্টো বেশ কয়েকটি সুযোগ সৃষ্টি করেছিল গ্যাব্রিয়েল মার্তিনেল্লিরা।

৮১ মিনিটে জোড়া পরিবর্তন আনেন ব্রাজিল কোচ দরিভাল জুনিয়র। লুকাস পাকেতাকে তুলে ডগলাস লুইসকে আর জোয়াও গোমেজের পরিবর্তে আন্দ্রেস পেরেইরাকে মাঠে নামান তিনি। তাতেই আক্রমণে ধার বাড়ে ব্রাজিলের। তবে নির্ধারিত সময়ে কাঙ্ক্ষিত গোলটি ব্রাজিলকে এনে দিতে পারেননি কেউই।

নান্দেস লালকার্ড দেখার আগ পর্যন্ত বল পজিশনে সমানে সমান ছিল দুই দল। বরং পোস্টে শট নেওয়ার দিক থেকে এগিয়ে ছিল উরুগুয়ে। নুনিয়েজ-লুইস সুয়ারেজরা ব্রাজিলের পোস্ট বরাবর ১১টি শট নিয়েছিলেন, যার মধ্যে মাত্র ১টি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিলেন। অন্যদিকে ৭টি শট নিয়ে ৩টি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিল ব্রাজিল।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img