NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১৪ আগস্ট ২০২২, রবিবার

ডিপিএলে নাইম শেখ ঝড়

- Advertisement -

বড় টার্গেট তাড়া করে আবাহনীর জয়। নাইম শেখের অবিশ্বাস্য ৩৯ রানের ইনিংসে লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জের ১৬৩ রান ২ বল বাঁকি রেখেই চেজ করে ফেলে আকাশি-নীলরা।

ছবিঃ ইন্টারনেট
ছবিঃ ইন্টারনেট

লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে হেভিওয়েট আবাহনীর বিরুদ্ধে টস জিতে আগে ব্যাটিং নেন লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জ অধিনায়ক নাঈম ইসলাম। ১৮ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে ব্যাট করতে নেমে ভালো শুরু করে রুপগঞ্জ। দলের ২০ রানে মেহেদি মারুফ আউট হয়ে ফিরে গেলে, তিনে নেমে সাব্বির রহমান জুটি গড়েন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান জাকের আলির সাথে। দুজনের ৫১ বলে ৬৯ রানের জুটিতে ১১তম ওভারে ৯০ রান ওঠে তাদের স্কোরবোর্ডে। সাব্বির ফেরেন ২৭ বলে ৩৫ রানে। ৩ চার এবং ২ ছয়ে জাকের আলী করেন ৫২ রান। মিডলঅর্ডারে আল আমিনের ১৪ বলে ২৬ এবং মুক্তার আলীর ৫ বলে ১৪ রানের ইনিংসে ভালো শেষ করে লিজেন্ডস। নির্ধারিত ১৮ ওভারে তাদের ইনিংস শেষ হয় ৫ উইকেটে ১৬৩ রানে। আবাহনীর হয়ে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে ৩টি উইকেট নেনে বাঁহাতি পেসার মেহেদি হাসান রানা, অপর দুটি উইকেট নেন  সাইফুদ্দিন।

ছবিঃ বিসিবি
ছবিঃ বিসিবি

১৬৪ রানের বড় সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে ভালো শুরুকে বড় করতে পারেননি আবাহনী ওপেনাররা। মুনিম শাহরিয়ার ১৬ বলে ২২ এবং নাজমুল শান্ত আউট হন ১৯ বলে ২৯ করে। উইকেট হারালেও রানের চাকা ধিরে হতে দেয়নি আবাহনী ব্যাটাররা। জুম্মন, শান্তর পর প্রয়োজনীয় গতিতে রান তুলতে থাকে  মুশি-আফিফ জুটি। রান খড়া থেকে এদিনও বেরোতে পারেননি আবাহনী অধিনায়ক; মুশফিক আউট হন ২০ রান করে। মুশফিকের পর আফিফের বিদায়ে ম্যাচের লাগাম হাত ছাড়া হতে থাকে আবাহনীর। ইনিংস বড় করতে পারেননি মোসাদ্দেক হোসেনও। শেষ ৩ ওভারে আবাহনীর জিততে দরকার ছিল ৩৮; পিচে থাকা দুই বাঁহাতি নাইম শেখ ও সাইফুদ্দিন ছিলেন বলেই বিশ্বাস ছিল আবাহনীর। সেই বিশ্বাসের মর্যাদা রাখে এই জুটি; ২৭ বলে ৫১ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ম্যাচ শেষ করে ওঠেন দুজন। ওপেনিংয়ের নাইম শেখ কেন ছয়ে ব্যাট করেছিলেন এদিন ; ১৯ বলে ৩৯ রানের ইনিংসে সে প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তিনি । সাইফুদ্দিন ২ উইকেটের সাথে ব্যাট হাতেও ১৪ রান করে হন ম্যান অব দ্যা ম্যাচ।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img