৬ অক্টোবর ২০২২, বৃহস্পতিবার

দশজনের বাংলাদেশও হার মানলো না ভারতের সামনে

- Advertisement -

দল ইতোমধ্যে এক গোল খেয়ে পিছিয়ে, তার উপর ৫৪ মিনিটে লালকার্ড দেখে যখন মাঠ থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন বিশ্বনাথ ঘোষ, কতোটুকু বিশ্বাস ছিল তার মনে যে, তার সতীর্থরা এই ম্যাচের ফলাফলে হার ব্যতীত অন্য কিছু লিখতে পারবে? কতোটুকুই বা বিশ্বাস ছিল মাঠে বা টিভির সামনে বসা বাংলাদেশের সমর্থকদের মনেও? প্রতিপক্ষ ভারতের বিপক্ষে যে এগারোজনের বাংলাদেশেরও হাতেগোনা সাফল্যের বিপরীতে ব্যর্থতার ইতিহাসই বেশি।

কিন্তু বিধাতা আজ ভিন্ন দৃশ্যপট ভেবে রেখেছিলেন লাল-সবুজের দলের জন্য! ডাগআউটে বসে দেখলেন বিশ্বনাথ, দশজনের দল হয়েও লড়াই ছাড়ছে না বাংলাদেশ, দেখলেন ৭৪ মিনিটে কর্নার থেকে বলটা ইয়াসিন আরাফাতের মাথা ছুঁয়ে যখন জালে ঢুকে যাওয়ার পর দলের উল্লাস, দেখলেন কোচ অস্কার ব্রুজনের পাগুলে দৌড়। দেখলেন কিভাবে সবদিক দিয়ে পিছিয়ে পড়েও বাংলাদেশ গড়লো ফিরে আসার ইতিহাস।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়ার ও দ্বিতীয়ার্ধে দশজনের দলে পরিণত হওয়ার পরও  ইয়াসিন আরাফাতের গোলে ভারতের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ! ভারতের পক্ষে গোলটি করেছেন সুনীল ছেত্রি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় থেকে প্রাপ্ত আত্মবিশ্বাস নিয়েই মালদ্বীপ ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে সোমবার ভারতের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল কোচ অস্কার ব্রুজনের দল। যদিও ভারতের বিপক্ষে জয়ের ইতিহাস খুঁজতে হলে যেতে হবে দুই দশকের বেশি পেছনে তবুও ম্যাচের আগে জয় ছাড়া অন্য কোন কথা ছিলনা দলের কারো মুখে, স্মৃতিতে হয়তো ছিল দুইবছর আগের কলকাতার সল্টলেকের সেই প্রায় জিততে জিততে ড্র করার স্মৃতি (অবশ্য এরপরের ম্যাচটিই বাংলাদেশ হেরেছিল ২-০ গোলে)

আগের ম্যাচের একাদশ থেকে দুটি পরিবর্তন নিয়ে নেমেছিল বাংলাদেশ। সুমন রেজা ও জুয়েল রানার বদলে একাদশে ঢুকেছিলেন সাদ উদ্দিন ও মতিন মিয়া। ৪-১-৪-১ ছকে শুরু থেকেই ভারতের সাথে টক্কর দিয়েই খেলতে থাকে বাংলাদেশ। ভালো কিছু সুযোগ সৃষ্টি করেছিল মতিন-বিপলু-রাকিবরা। ভারতও আক্রমণ চালাচ্ছিল সমানতালেই। ২৬ মিনিটে গোলমুখ অবশ্য ভারতই খোলে; সুনীল ছেত্রীর গোলে ১-০ গোলে পিছিয়ে পড়ে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দুইদলের সর্বশেষ ম্যাচেও সুনীল ছেত্রিকে মার্ক করতে ভুল করেছিলেন তপু বর্মণ; আজকেও একই ভুল করলেন।

Image
গোল করে দলকে এগিয়ে দেন সুনীল ছেত্রী

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৪ মিনিটে আরেকটি ভুলের মাশুল গোনে বাংলাদেশ। ভারতীয় উইঙ্গার লিস্টন কোলাচোকে পেছন থেকে জাপটে ধরে ফেলে দিয়ে লাল কার্ড দেখেন বিশ্বনাথ ঘোষ; কোলাচো যে পেছন থেকে ছুটে আসছেন তা বুঝতেই পারেননি এই ডিফেন্ডার।

তবে দশজনের দলে পরিণত হয়ে চিরাচরিতভাবে খোলসে ঢুকে যায়নি বাংলাদেশ। বরং আক্রমণ আর রক্ষণের মধ্যে সুন্দর সমন্বয় বজায় রেখে সুযোগ পেলেই আক্রমণ শানাচ্ছিলেন মতিন-বিপলুরা। অবশেষে ৭৪ মিনিটে এলো সেই মুহুর্ত। কর্নার থেকে আসা বলটায় প্রথমে মাথা ছুঁইয়েছেন রাকিব, কিন্তু সেটিকে গোলে পরিণত করে ইয়াসিন আরাফাতের একটি হেড। ১-১ গোলে খেলায় আসে সমতা।

গোল করে ইয়াসিনের উল্লাস

এরপরও সন্তুষ্ট না হয়ে জয়সূচক গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে বাংলাদেশ; তবে তারা আর গোল করতে পারেনি, অবশ্য ভারতকে গোল করতেও দেয়নি।

সল্টলেকের পর মালদ্বীপ- মাত্র এক ম্যাচের ব্যবধানে দুইদুইবার ভারতের বিপক্ষে এমন ড্রতে জয়ের সমান আনন্দই হয়তো অনুভব করছে বাংলাদেশ।

এই ড্রয়ের ফলে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে অবস্থান করছে লাল-সবুজের দল।

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img