১৪ জুলাই ২০২৪, রবিবার

পাল্লেকেলের উইকেট গড়পড়তা মানেরও না: আইসিসি

- Advertisement -

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্টের উইকেট ছিল ব্যাটিংবান্ধব। শুধু ব্যাটিংবান্ধব বললেও হয়তো কম হয়ে যায়, পাল্লেকেলের উইকেট বোলারদের জন্য ছিল দুঃস্বপ্নের মতোই। ম্যাচ চলাকালীন এবং শেষে অনেক সমালোচকই পাল্লেকেলের উইকেটের সমালোচনায় মত্ত ছিলেন। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট শুরু বৃহস্পতিবার, ম্যাচ শুরুর ২৪ ঘন্টারও কম সময় আগে আইসিসির ঘোষণা, পাল্লেকেলের খাতায় যোগ হচ্ছে ১ ডিমেরিট পয়েন্ট।

আইসিসি তাদের বিবৃতিতে পাল্লেকেলের উইকেটের মান নিয়ে তুলেছে প্রশ্ন। তাদের মতে এমন উইকেট গড়পরতা মানেরও না। যার ফলে নিয়ম অনুযায়ী ডিমেরিট পয়েন্ট পাচ্ছে পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

‘পিচে পাঁচদিনে কোনো পরিবর্তন আসেনি। ব্যাটি আর বোলিংয়ের সমন্নয়টাও ঠিকঠাক হয়নি।  পুরোটা সময় উইকেট ব্যাটসম্যানদের সহায়তা করেছে। যার ফলে ১৭ উইকেট খরচায় রান হয়েছে ১২৮৯, গড় ৭৫.৮২, যেটা খুবই বেশি। আইসিসির নিয়ম মোতাবেকই এই উইকেট মান গড়পরতার চেয়েও নিচে বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।‘

উইকেটের অবস্থা কতোটা মানহীন ছিল সেটা স্বাগতিক দলের অধিনায়ক করুনারত্নের কথাতেই ছিল স্পষ্ট।  গণমাধ্যমে  তার ভাষ্য, এমন উইকেটে পঞ্চাশ রানও কোনো ব্যাটসম্যানের জন্য যথেষ্ট নয়।

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচে ডিমেরিট পয়েন্ট পাওয়ার ঘটনা নতুন না। বছর তিনেক আগে এই দুদলের ম্যাচে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামও পেয়ছিল ডিমেরিট পয়েন্ট। সেই ম্যাচে ২৪ উইকেট খরচায় দুই দল রান তুলেছিল ১৫৩৩। নিয়ম অনুযায়ী ডিমেরিট পয়েন্ট কার্যকর থাকে পাঁচ বছর পর্যন্ত। কোনো ভেন্যু ৫টি ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে ১২ মাস এবং ১০ ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে ২৪ ম্যাচ আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন থেকে নিষিদ্ধ হয়।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img