২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার

পিএসজির শততম ম্যাচ জয়

- Advertisement -

মার্শেইয়ের বিপক্ষে নিজেদের শততম ম্যাচ জয় দিয়ে উদযাপন করলেন এমবাপ্পেরা। এমন ম্যাচে মাঠে দর্শক প্রবেশের অনুমতি থাকলে উত্তেজনা আরো কয়েক গুণ বেড়ে যেত। টেবিলের নবম স্থানে থাকা অলিম্পিক মার্শেই কিছুদিন আগেই ছাটাই করে দিয়েছিলো ম্যানেজার আন্দ্রে ভিয়া বোয়াকে। নতুন ম্যানেজারের অধীনে তাদের প্রথম ম্যাচ। অন্যদিকে ‘ট্রফি দ্যা চ্যাম্পিয়নওনেস’ টুর্নামেন্টে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই কয়েক সপ্তাহ আগেই এই দলকে হারিয়েছে ২-১ গোলে। তাই কোচ পচেত্তিনোর জানা ছিলো প্রতিপক্ষের খেলার ধরন। তবে চলতি সিজনে লিগ ওয়ানেই মার্শেইয়ের কাছে ঘরের মাঠে হেরে বসেছিলো পিএসজি। 

নেইমারকে বেঞ্চে রেখেই দল সাজায় পিএসজি। শুরুটা হবে পারতো ইকার্দিকে দিয়ে, কিন্তু তিনি ডি মারিয়ার ফ্রি কিক থেকে পাওয়া বল মিস করেন। নিজেদের মাঠে শেষ সাত ম্যাচ হারা মার্শেই খেলা শুরুর দশ মিনিটেই পিছিয়ে পড়েন, নির্ভুল পাসিং থেকে পিএসজিকে লিড এনে দেন এমবাপ্পে, দলে অভিষেকের পর এই পর্যন্ত তিনি ম্যাচের প্রথমার্ধেই সবচেয়ে বেশি গোল পেয়েছেন এই ফরাসি। পচেত্তিনোর মাথা নতুন কৌশল, উঠিয়ে নেন ডি মারিয়াকে। মার্শেই মরিয়া হয়ে ওঠে গোল শোধ করার জন্য।  উল্টো ২৫ মিনিটে গোল ব্যবধান দ্বিগুন করেন ইকার্দি। নামানো হয় নেইমারকে। বিরতিতে যাবার আগ পর্যন্ত দারুণ খেলা দেখান মার্শেই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাদের একটা সুযোগও কাজে লাগাতে পারেনি, বরং শেষ মুহূর্তে এসে লাল কার্ড দেখতে হয় ডিফেন্ডার দিমিত্রি পায়েকে। শেষ দুই সিজনে তার মোট লাল কার্ডের সংখ্যা তিন! তবে এই ম্যাচে দলগত পারফরম্যান্স বিবেচনায় মার্শেইকেই এগিয়ে রাখতে হবে। এই জয়ে তিন পয়েন্ট যোগ হলো পিএসজির। শীর্ষে থাকা লিঁলের সাথে তাদের পয়েন্টের ফারাক মাত্র তিন। 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img