১৭ জুলাই ২০২৪, বুধবার

পেনাল্টি নিয়ে রেফারির ‘ছেলেখেলা’, রাগে ফুঁসছে আর্সেনাল-বায়ার্ন

- Advertisement -

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ আটের প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদ-ম্যানচেষ্টার সিটির মতোই ড্র হয়েছে আর্সেনাল-বায়ার্ন মিউনিখের ম্যাচটিও। যদিও আর্সেনাল-বায়ার্নের ম্যাচ এখন আলোচনায় আছে ভিন্ন এক কারণে। ম্যাচে পেনাল্টি না পাওয়া নিয়ে দুই দলই রেফারি গ্লেন নিবার্গের ওপর ক্ষোভ ঝাড়ছে। দুই ক্লাবের দাবি, ‘ন্যায্য পেনাল্টি’ পেলে ম্যাচের ফলাফল অন্যরকম হতে পারত!

এমিরেটসে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে আর্সেনাল-বায়ার্ন ২-২ গোলে ড্র করেছে। মূলত ম্যাচের ৬৬ মিনিটে আর্সেনাল গোলরক্ষক দাভিদ রায়া গোল কিক নেওয়ার পর পেনাল্টি বক্সেই হাত দিয়ে বল ধরেন ডিফেন্ডার গ্যাব্রিয়েল মাগালাইস। সেই বল আবার গোলরক্ষককে ফেরতও দেন। স্পষ্টভাবে হ্যান্ডবল হলেও রেফারি নিবার্গ তাতে পেনাল্টি দেননি। উল্টো বায়ার্নের কোচ টমাস টুখেল এবং দলের খেলোয়াড়দের দিয়েছেন অদ্ভুত ব্যাখ্যা।

ম্যাচ শেষে এ নিয়ে ক্ষোভ ঝেড়ে টুখেল বলেন, “আমাদের প্রাপ্য পেনাল্টি দেওয়ার মতো সাহসও ছিল না রেফারির। আমি জানি, ঘটনাটি অদ্ভুতই ছিল। ওরা বলটি রাখল, রেফারি বাঁশি বাজালেন, এরপর ডিফেন্ডার আবার হাত দিয়ে বলটাকে তুলল। পেনাল্টি না দেওয়া নিয়ে মাঠে রেফারি যে ব্যাখ্যা দিয়েছেন, তা নিয়েই আমার মেজাজ খারাপ। তিনি আমাদের খেলোয়াড়দের বলেছেন, এটা নাকি ‘শিশুতোষ ভুল’, আর এই কারণে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের মতো ম্যাচে তিনি পেনাল্টি দিতে পারেন না। কী মারাত্মক ব্যাখ্যা!  শিশুতোষ ভুল, বড়দের ভুল, তাতে কী আসে যায়।”   

শুধু জার্মান এই ক্লাবের ক্ষেত্রেই নয়, আর্সেনালও করেছে পেনাল্টি না পাওয়ার অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটে ম্যাচের যোগ করা সময়ে। বায়ার্নের পেনাল্টি বক্সে গোলরক্ষক মানুয়েল নয়্যার ডান পা দিয়ে ফেলে দেন আর্সেনাল ফরোয়ার্ড বুকায়ো সাকাকে। এরপর আর্সেনালের খেলোয়াড়ের আবেদন করলেও রেফারি পেনাল্টি দেননি। এতে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারিও (ভিএআর) কোনো হস্তক্ষেপ করেনি।  ম্যাচ শেষে আর্সেনালের লিয়ান্দ্রো ত্রোসার এক সাক্ষাৎকারে বলেন, “আমার কাছে তো এটা পেনাল্টিই ছিল, এটা পরিষ্কার পায়ে পা লেগেছে।”

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img