২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

রোনালদোর গোলে ‘প্রত্যাবর্তনের রাজা’দের আরেকটি জয়

- Advertisement -

বৃহস্পতিবার ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের মঞ্চে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আরো একবার প্রমাণ করলো তাঁদের ‘কামব্যাক কিংস’ উপাধির সার্থকতা।  ইতালিয়ান ক্লাব আতালান্তার বিপক্ষে দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও অসাধারণভাবে ফিরে এসে ৩-২ গোলে ম্যাচটি জিতে নিয়ে ‘রেড ডেভিল’রা লিখলো আরেকটি অসাধারণ প্রত্যাবর্তনের গল্প। মার্কাস রাশফোর্ড, হ্যারি ম্যাগুয়েরের গোলের পাশাপাশি ইউনাইটেডের জার্সিতে নিজের ৩০০ তম ম্যাচে জয়সূচক গোলটি করে যে গল্প রচনায় মূখ্য ভূমিকা পালন করলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

৫৩ মিনিটে ব্রুনো ফের্নান্দেজের চতুর পাস থেকে মার্কাস রাশফোর্ডের কাউন্টার অ্যাটাকে অসাধারণ গোল থেকেই প্রত্যাবর্তনের কাহিনী শুরু, এর আগ পর্যন্ত তো মনেই হচ্ছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ড থেকে বড় জয় নিয়েই ফিরবে আতালান্তা। ১৫ মিনিটে মারিও পাসালিচ ও ২৯ মিনিটে মিরাই ডেমিরালের গোলে ২-০ তে এগিয়ে যায় জিয়ান পিয়েরো গ্যাসপারিনির দল। অপরদিকে ঘরের মাঠে আতালান্তার ডিফেন্সে খাবি খাচ্ছিল ইউনাইটেডের আক্রমণভাগ। প্রথমার্ধে মাত্র তিনটি সরাসরি গোল হতে পারে এমন সুযোগ সৃষ্টি করেছে ইউনাইটেড, যার দুটিই আবার এসেছে ‘ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার’ ফ্রেডের পা থেকে।

তবে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে ফিরেই ইউনাইটেড তাই করতে শুরু করে যা করতে তারা সিদ্ধহস্ত, প্রত্যাবর্তন! চোট থেকে ফিরে এটি মার্কাস রাশফোর্ডেরও এই সীজনের প্রথম চ্যাম্পিয়নস লিগ ম্যাচ। গোল করে নিজের চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ‘প্রত্যাবর্তন’টা স্মরণীয় করে রাখলেন তিনিও। মাঠে ফেরার পর এই নিয়ে টানা দুই ম্যাচে গোল পেলেন সদ্য সম্মানসূচক ‘ডক্টরেট’ ডিগ্রি পাওয়া এই ইংলিশ ফুটবলার।

এরপর থেকেই আতালান্তার রক্ষণভাগে আক্রমণের বৃষ্টি ঘটানো শুরু করে ইউনাইটেড। দুই দুইবার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর শট ওয়ান অন ওয়ানে ঠেকিয়ে দেন আতালান্তা গোলকিপার হুয়ান মুসো; স্কট ম্যাকটমিনের একটি শট ক্রসবারে আঘাত করে। খানিকক্ষণ পর কর্নার থেকে হ্যারি ম্যাগুয়েরের একটি হেডারও ঠেকান এই গোলকিপার; তবে এক মিনিট পরই ম্যাগুয়েরের আরেকটি শট ঠেকাতে পারেননি। অধিনায়কের গোলে সমতায় ফেরে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

৮০ মিনিটে নিজের ‘ট্রেডমার্ক’ হেডারে ইউনাইটেডের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন তিনি, যিনি সম্ভবত এরকম মূহুর্ত সমূহ বারবার সৃষ্টি করার জন্যই ইউনাইটেডে ফিরে এসেছেন! ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর গোলে ৩-২ হয় স্কোরলাইন। এই নিয়ে টানা দুটি চ্যাম্পিয়নস লিগ ম্যাচ পেছন থেকে ফিরে এসে জিতলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দুটিতেই জয়সূচক গোল করেছেন রোনালদো। হুয়ান মুসো অতিমানবীয় গোলকিপিং না করলে হয়তো হ্যাটট্রিকটাও পেয়ে যেতেন সিআরসেভেন।

ম্যাচ জেতানো গোলের জন্য রোনালদোকে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার দেওয়া হলেও, ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নিঃসন্দেহে ব্রুনো ফের্নান্দেজ। রাশফোর্ডকে করা ঐ অ্যাসিস্টটি বাদেও ম্যাচে ৮টি ‘সুযোগ’ সৃষ্টি করেছেন ব্রুনো; দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রোনালদোর ৩টি। এতেই বোঝা যায় মাঠে কি পরিমাণ সৃষ্টিশীলতার পরিচয় দিয়েছেন এই পর্তুগিজ প্লেমেকার।

এই জয়ে গ্রুপ ‘এফ’ এর শীর্ষে অবস্থান করছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। গ্রুপের অপর ম্যাচে ইয়ং বয়েজকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ভিয়ারিয়াল।

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img