NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১২ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার

ফাতির গোলে বেঁচে রইলো বার্সেলোনার দ্বিতীয় রাউন্ডের আশা

- Advertisement -

ইউরোপা লিগ খেলার ‘অভিশাপ’ এড়াতে এই ম্যাচে জয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল; ড্র করলে  বা হেরে গেলে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ১৬তে কোয়ালিফাই করার সুযোগ একেবারেই সীমিত হয়ে যেতো। এমন কঠিন চাপ মাথায় ডায়নামো কিয়েভের মাঠে খেলতে গিয়েছিলো ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা।

ইউক্রেনের শীর্ষসারির ফুটবল ক্লাবের বিপক্ষে জয় ভিন্ন বাকি দুটো সম্ভাবনা ম্যাচজুড়েই বহুবার উঁকি দিল, চোখও রাঙ্গালো, তবে শেষমেশ আনসু ফাতির গোলে মাথার ওপর থেকে খড়গটা আপাতত নামাতে পেরেছে বার্সা। কিয়েভের মাঠ থেকে জয় নিয়ে ফিরেছে ১-০ গোলে। কিয়েভের বিপক্ষে টানা দুই ম্যাচে জয়ের পর গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে থাকা বার্সেলোনার দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার সম্ভাবনাকেও মনে হচ্ছে উজ্জ্বল।

প্রথমার্ধের ২৪ থেকে ২৯- এই ৫ মিনিটের মধ্যে বার্সেলোনা তিন গোল খেয়ে যেতে পারতো। মিকোলা শাপারেঙ্কোর বল অল্পের জন্য জাল মিস করে, কার্লোস ডে পেনার শট পা দিয়ে কোনরকমে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক টের স্টেগান, ডেনিস হারমাশও অল্পের জন্য লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি।

বার্সেলোনাও বেশকিছু ভালো সুযোগ সৃষ্টি যে করেনি তা নয়। ক্লেমেন্ত লংলের হেড পোস্টে লেগে ফিরে আসে, মেমফিস ডিপেই একটি নিশ্চিত সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন। দ্বিতীয়ার্ধের ৬৪ মিনিটে একটি পেনাল্টিও প্রায় পেয়ে গিয়েছিলো বার্সা। তবে ভিএআরে সেটি বাতিল ঘোষিত হয়।

পেনাল্টিটি যিনি আদায় করতে চেয়েছিলেন, এর কিছুক্ষণ পর সেই আনসু ফাতির গোলেই অবশেষে গোলমুখ খুলতে পারে কাতালানরা। মিনগুয়েজার ক্রসটি কিয়েভের খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে ছিটকে আসলে সেটিকে জালে পাঠাতে ভুল করেননি বার্সেলোনার ১৯ বছর বয়সী ‘নাম্বার ১০’।

এই ম্যাচেও বার্সেলোনার ডাগআউটে দাঁড়িয়েছিলেন অন্তর্বর্তীকালীন কোচ সার্জি বারজুয়ান।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img