৩১ জানুয়ারি ২০২৩, মঙ্গলবার

‘প্রথম বল থেকেই নিজেদের সেরাটা দেওয়া’র প্রত্যয় রিয়াদের মুখে

- Advertisement -

অনুষ্ঠান সঞ্চালক নিয়াল ও’ব্রায়েন প্রথমেই শুরু করলেন, “আজকের ওয়ার্ম আপ ম্যাচ নিয়ে কোন কথা না বলি আমরা, কি বলেন রিয়াদ?” বলে। জবাবে ভদ্রতাসূচক হাসি দেওয়া ছাড়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কি-ই বা আর বলবেন? দুটো প্রস্তুতি ম্যাচের দুটোই যে হেরে গেছে বাংলাদেশ, তার দ্বিতীয়টা আবার নিয়ালের দেশ আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেই।

বিশ্বকাপের অফিশিয়াল ভার্চুয়াল ক্যাপ্টেনস মিডিয়া ইন্টারঅ্যাকশনে পাপুয়া নিউগিনি অধিনায়ক আসাদ ভাল্লা ও আফগানিস্তান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবীর সাথে বৃহস্পতিবার যুক্ত হয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। প্রথম রাউন্ডের ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি। আপাতঃদৃষ্টিতে দেখলে এই গ্রুপে বাংলাদেশই ফেভারিট। তবে প্রস্তুতি ম্যাচে যা হয়েছে, তারপর আসলে বড় গলা করে কিছু বলা কঠিন। রিয়াদের কন্ঠে অবশ্য তাও ঝড়লো ভালো করার প্রত্যয়। জানালেন, নামের ভারে নয়, প্রতিটি ম্যাচে একদম প্রথম বল থেকে ভালো খেলেই নিজেদের ফেভারিট প্রমাণ করবে বাংলাদেশ।

“গ্রুপ পর্বে আমাদের দলগুলির ভিডিও ফুটেজ আমরা দেখেছি। তবে আমি বলতে চাই যারাই এখানে এসেছে তারা প্রত্যেকে যোগ্য। কাউকেই হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই। আমাদের নিজেদের প্রমাণ করতে হবে মাঠে ভালো খেলে। একদম প্রথম বল থেকেই নিজেদের সেরাটা দেওয়ার হবে এদের বিরুদ্ধে”- বলেছেন রিয়াদ

যে দলগুলোর সাথে বাংলাদেশের খেলা, তাঁদের দলে রয়েছে অনেক পাওয়ার হিটার। সেই অর্থে বাংলাদেশ দলে যা নেই। রিয়াদ অবশ্য জানালেন, বাংলাদেশের নিজস্ব ‘ব্র্যান্ডের’ ক্রিকেটে পাওয়ার হিটার খুব অত্যাবশ্যকীয় নয়।

“পাওয়ার হিটারে ভরপুর দলই যে আপনার থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই। ‘বাংলাদেশী ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট’ খেলেই আমরা দেখাতে চাই আমরা কি করতে পারি”- যোগ করেছেন রিয়াদ

বিগত দুই সিরিজ স্পিন সহায়ক নিচু মন্থর পিচে স্পিনারদের সহায়তায় জিতে এসেছে বাংলাদেশ। আমিরাতের উইকেটও স্পিনারদের যথেষ্ট সহায়তা করে। সুতরাং বাংলাদেশের অধিনায়কের সাক্ষাৎকারে তো স্পিনার প্রসঙ্গ উঠবেই। রিয়াদ অবশ্য স্পিনারদের সাথে পেসারদেরও দিয়েছেন সমান গুরুত্ব।

“স্পিনাররা অনেকদিন ধরেই আমাদের বোলিং আক্রমণের মূল শক্তি। তবে আমাদের পেসাররাও বিগত তিন সিরিজে ভালো করেছে। আমাদের বোলিং আক্রমণ অনেক ভারসাম্যপূর্ণ। আশাকরি এই কন্ডিশনে পেসার স্পিনার উভয়েই মানিয়ে নেবে এবং ভালো করবে।”

তামিম ইকবালের অনুপস্থিতি লিটন, নাইম ও সৌম্যর জন্য বেশ ভালো সুযোগ বলে মনে করেন রিয়াদ। সাকিব মুশফিক ও নিজের অভিজ্ঞতার সাথে এই তরুণদের তারুণ্যের শক্তি যুক্ত হয়ে বেশ ভারসাম্যপূর্ণ দলই গড়েছে বাংলাদেশ, এমনটাই মনে করেন অধিনায়ক।

অনুষ্ঠানের শেষে এই বিশ্বকাপে সম্ভাব্য সেরা একজন ব্যাটসম্যান ও একজন বোলার বেছে নিতে বলা হলে রিয়াদ বেছে নেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল ও পাকিস্তানি পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদিকে।

পিঠের চোটের জন্য ওমানের বিপক্ষে অনানুষ্ঠানিক ও শ্রীলঙ্কা-আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আনুষ্ঠানিক কোন ম্যাচই খেলেননি রিয়াদ। তবে জানিয়েছেন, বিশ্রামের পর এখন সম্পূর্ণ সুস্থ তিনি। আশা করছেন ১৭ তারিখ প্রথম রাউন্ডের প্রথম ম্যাচ থেকেই মাঠে নামতে পারবেন।

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।

 

 

 

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img