NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১২ আগস্ট ২০২২, শুক্রবার

বিসিবি পরিচালনা পরিষদ নির্বাচন-২০২১: যা জানতে হবে আপনাকে

- Advertisement -

ব্যাটবলের ঠোকাঠুকির শব্দ ছাপিয়ে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট এখন বাজছে নির্বাচনের দামামা। আগামী ৬ অক্টোবর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) পরিচালনা পরিষদ নির্বাচনের মাধ্যমেই নির্ধারিত হবে আগামী চার বছরের জন্য কারা নিতে চলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের দায়িত্বভার। এতো জমজমাট, ভারসাম্যপূর্ণ আর উৎসবমুখর পরিবেশে নাকি নিকট অতীতে কখনো বিসিবি নির্বাচন হয়নি; এমনটাই বোর্ড সংশ্লিষ্টদের দাবি। এর আরেকটি বড় কারণ, এবার নির্বাচনে কোন প্যানেল নেই। যে কেউ মনোনয়নপত্র কিনতে পেরেছেন; যা নির্বাচনে প্রতিযোগিতার উন্মুক্ততা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন অতিবাহিত হওয়ার পর ৩১ জন প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকাও প্রকাশ করেছে বিসিবি নির্বাচন কমিশন। আসুন এক নজরে দেখে আসা যাক বিসিবি নির্বাচনে আসলে কি হতে চলেছে-

মোট ৩টি ক্যাটাগরিতে হবে এই নির্বাচন। যথা-

ক্যাটাগরি-১: আঞ্চলিক ও জেলা ক্রিকেট সংস্থার প্রতিনিধি

ক্যাটাগরি-২: ঢাকা মেট্রোপলিটন ক্লাব প্রতিনিধি

ক্যাটাগরি-৩: অন্যান্য প্রতিনিধি

মোট ২৫টি পরিচালক পদের বিপরীতে প্রাথমিকভাবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন ৩২ জন প্রার্থী; তবে বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন আম্বার স্পোর্টিং ক্লাবের জনাব শওকত আজিজ রাসেল; সুতরাং এখন চুড়ান্ত  প্রার্থীসংখ্যা ৩১ জনে দাঁড়িয়েছে। তিন ক্যাটাগরি মিলিয়ে মোট ১৭১ জন কাউন্সিলরের ভোটে এই প্রার্থীরা নির্বাচিত হবেন।

এই ২৫ পরিচালকের মধ্যে ২জন নির্বাচিত হবে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে। বাকি ২৩টি পরিচালক পদের মধ্যে ইতোমধ্যে ৭টি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছেন ৭ জন; যাঁরা প্রত্যেকেই ক্যাটাগরি-১ থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন। তাঁরা হলেন- সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, চট্টগ্রাম বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে আকরাম খান, চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে আ.জ.ম নাছির উদ্দীন, খুলনা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে শেখ সোহেল, যশোর জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে কাজী ইনাম আহমেদ, বরিশাল বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে আলমগীর খাঁন ও রংপুর বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে এডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম।

ছবিঃ অলরাউন্ডার
চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় নির্বাচিত হয়েছেন আকরাম খান

এর অর্থ, ক্যাটাগরি-১ থেকে এখন নির্বাচন হবে মাত্র ২টি বিভাগে- ঢাকা ও রাজশাহী। ঢাকা বিভাগের ২টি পদের বিপরীতে প্রার্থী রয়েছেন ৪ জন। তারা হলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে তানভীর আহমেদ (টিটু), মানিকগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে নাঈমুর রহমান দুর্জয়, কিশোরগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম (টিটু) ও মাদারীপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে মোঃ খালিদ হোসেন।

মনোনয়নপত্র কিনছেন নাঈমুর রহমান দুর্জয়

রাজশাহী বিভাগে একটি পদের বিপরীতে দাঁড়িয়েছেন ২ জন কাউন্সিলর। তারা হলেন- রাজশাহী বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা থেকে খালেদ মাসুদ পাইলট ও পাবনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা থেকে মো. সাইফুল আলম স্বপন চৌধুরী।

ক্যাটাগরি-২ এর আওতায় মোট পদ আছে ১২টি। ১২টি পদের বিপরীতে ঢাকা মেট্রোপলিটন ক্লাব প্রতিনিধিদের মধ্য থেকে প্রার্থী প্রথমে ছিলেন ১৭ জন, শওকত আজিজের প্রত্যাহারের পর এখন নির্বাচন করছেন ১৬ জন। তাঁরা হলেন- বর্তমান সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এমপি (আবাহনী লিমিটেড), গাজী গোলাম মুর্তজা (গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স), নজিব আহমেদ (শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব লিমিটেড), মাহবুব উল আনাম ও মাসুদুজ্জামান (মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড), ওবেদ রশীদ নিযাম (শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব), সাইফুল ইসলাম ভূইয়া (ওল্ড ডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাব), মোঃ সালাহউদ্দিন চৌধুরী (কাকরাইল বয়েজ ক্লাব), ইসমাইল হায়দার মল্লিক (শেখ জামাল ক্রিকেটার্স), মোঃ এনায়েত হোসেন (আজাদ স্পোর্টিং ক্লাব), ফাহিম সিনহা (সূর্য তরুণ ক্লাব), ইফতেখার রহমান (ফেয়ার ফাইটার্স স্পোর্টিং ক্লাব), মনজুর কাদের (ঢাকা এসেটস), মোহাম্মদ আব্দুর রহমান (মিরপুর বয়েজ ক্রিকেট ক্লাব), মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম (গাজী টায়ার্স ক্রিকেট একাডেমী) ও মোঃ মনজুর আল (আসিফ শিফা ক্রিকেট একাডেমী)

ক্যাটাগরি-৩ এর একটি পদের বিপরীতে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন ২ জন। তারা হলেন- সাবেক জাতীয় দলের ক্রিকেটার ও অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন ও বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) থেকে নাজমুল আবেদীন ফাহিম।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন সাজ্জাদুল আলম ববি ও জালাল ইউনুস।

সশরীরে এসে ভোট দেওয়া ছাড়াও এবার নির্বাচনে কাউন্সিলরদের রয়েছে পোস্টাল ব্যালট ও ই ভোটের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার সুযোগ।

 

 

 

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img