৭ ডিসেম্বর ২০২২, বুধবার

বড় জয়ের অপেক্ষায় ভারত

- Advertisement -

অশ্বিন তখন ব্যাট করছিলেন, ড্রোন শটে উইকেট দেখেই বোঝা যাচ্ছিল টিকে থাকা কতটা কঠিন। কঠিন পরীক্ষায় যারা জয়ী হয় তারাই তো বিজয়ী, তারাই তো যোদ্ধা। অশ্বিন লড়লেন, সেঞ্চুরি করলেন, সাথে ছিলেন মোহাম্মাদ সিরাজ। অশ্বিনের সেঞ্চুরির মতোই তার টিকে থাকা বলগুলো সমান গুরুত্বপূর্ণ। তিনিই যে ছিলেন টিম ইন্ডিয়ার লাস্ট ম্যান।

ক্রিকেটকে বলা হয় টিম গেইম। অশ্বিনের সেঞ্চুরি যখন হলো ক্যামেরা ফ্রেম তখন মোহাম্মদ সিরাজকে খুঁজে নিয়েছিল। সিরিজ উদযাপন করছিলেন, তার না অশ্বিনের সেঞ্চুরি। ক্যারিয়ার গ্রাফে স্বাভাবিকভাবেই সেঞ্চুরিটা লেখা থাকবে অশ্বিনের নামের পাশে, তবে দেশের জন্য খেলবো তখন সবকিছুই আমার। ওই জাতীয় সংগীত, ওই জার্সি, হেলমেটে লাগানো দেশের পতাকা সবকিছু, মোহাম্মদ সিরাজএর ভাবনা হয়তো তেমনি।

অশ্বিনের জার্সি নাম্বার নিরানব্বই, ওই নিরানব্বই থেকে একশো তে যে অশ্বিন ভুল করেছিলেন, তবে তখন এমন অনেক কিছুই হবে, অনেক কিছুই নিজের পক্ষে কথা বলবে। অশ্বিন সেঞ্চুরি পেলেন, মোহাম্মদ সিরিজের দুটো ছয়ই বা আপনি কিভাবে ভুলবেন।

একই ইনিংসে সেঞ্চুরি এবং পাঁচ উইকেট, ভারতীয় ইতিহাসে এই নিয়ে পাঁচবার, তিনবারই অশ্বিনের।

অশ্বিন কাব্যের আড়ালে ঢাকা পড়েছে মঈন আলীর বিরত্ব, প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখেছেন দুই ইনিংসে পেয়েছেন আট উইকেট।

দ্বিতীয় ইনিংসে ভারত অল আউট হয়েছে তিনশোর আগেই। তবে দুই ইনিংস অর্থাৎ আগের ইনিংসের লিড মিলে ইংলিশদের সামনে টার্গেট ৪৮২। এই টেস্ট জিততে হলে ইংল্যান্ডকে গড়তে হবে ইতিহাস, এশিয়ার মাটিতে  কেউ কখনো ৪০০ রান টপকে জিতেছে সেই ইতিহাস নেই। ইংল্যান্ডের জন্য কতোটা কঠিন সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না, তবে এতটুকু নিশ্চিকরেই বলা যায়, অসম্ভব স্বপ্ন সফলের পথেই ইংলিশদের যাত্রা। দিনশেষে ৫৩ তুলেই ইংল্যান্ড উইকেট হারিয়েছে তিনটা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত (১ম ইনিংস): ৩২৯

ইংল্যান্ড (১ম ইনিংস): ১৩৪

ভারত (২য় ইনিংস): ২৮৬

ইংল্যান্ড (২য় ইনিংস): ৫৩/৩

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img