২৫ এপ্রিল ২০২৪, বৃহস্পতিবার

ভারতের স্বস্তির জয়

- Advertisement -

অবশেষে সেই কাঙ্ক্ষিত জয়ের দেখা পেল ভিরাট কোহলি-রোহিত শর্মারা। সেমিফাইনালের পথটা দূরের হলেও নিশ্চিতভাবেই এই জয় ভারতীয় শিবিরের জন্য স্বস্তির। ভারত যখন বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়ার আশঙ্কায়, ঠিক তখনই জ্বলে উঠল পুরো দল। আর, তাতেই আফগানিস্তানের সাথে মেন ইন ব্লুদের জয় এসেছে ৬৬ রানে।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে ভারত; ওপেনিংয়ে পুরোনো জুটি, খেলেছেনও চেনা ছন্দেই। রোহিত শর্মা-লোকেশ রাহুল মিলে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে চতুর্থবারের মতো গড়েছেন শত রানের জুটি, দুজনেই তুলে নিয়েছেন অর্ধশতক। প্রথম উইকেট পেতে মোহাম্মদ নবি-রশিদ খানদের লেগে গেছে ১৫ ওভার; মেন ইন ব্লুদের স্কোরবোর্ডে তখন রান দেড়শ ছুঁইছুঁই।

দলকে দুর্দান্ত শুরু এনে দিয়েছেন দুই ওপেনার

প্লাটফর্মটা তৈরী করেই দিয়ে গেছেন দুই ওপেনার, শুধু প্রয়োজন পাওয়ার হিটিংয়ের সাথে দুর্দান্ত সমাপ্তির। আর এজন্যই অধিনায়ক কোহলির পরিবর্তে তিন নম্বরে মাঠে রিশভ পান্থ, চারে হার্দিক পান্ডিয়া। দুইজনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ভারতের সংগ্রহটা পৌঁছে ২১০ রানে। অনেকদিন পর চেনা ছন্দে দেখা গেছে পান্ডিয়াকে; ১৩ বলে খেলেছেন অপরাজিত ৩৫* রানের ঝড়ো ইনিংস। সমান সংখ্যক বল খেলে পান্থের সংগ্রহ ২৭* রান। রোহিতের ব্যাট থেকে এসেছে সর্বোচ্চ ৭৪, রাহুলের সংগ্রহ ৬৯।

চেনা ছন্দে পান্ডিয়া

২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাকফুটে আফগানিস্তান। পাওয়ারপ্লেতেই নেই ২ উইকেট; তবে, ৪৭ রানটা স্বস্তি দিতেই পারে আফগান শিবিরকে। এরপরেই আবারো ছন্দপতন; সপ্তম ওভারে বল করতে এসে জাদেজা ফিরিয়েছেন প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টায় থাকা রহমতুল্লাহ গুরবাজকে। আফগান এই ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে এসেছে ১০ বলে ১৯ রান। দশম ওভারে নিজের প্রথম ওভার বল করতে এসেই রবীচন্দ্রন অশ্বিন প্যাভিলিয়নে ফিরিয়েছেন ১৮ রান করা আরেক সেট ব্যাটসম্যান গুলবাদিন নাইবকে।

উইকেট পাওয়ার পর কোহলিদের উদযাপন

ভারতের জয়টা তখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। হয়েছেও তাই; জয় এসেছে ৬৬ রানের বিশাল ব্যবধানে। আফগানিস্তানের ইনিংস শেষ হয়েছে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রানেই। মোহাম্মদ নবি-করিম জানাত মিলে চেষ্টা করলেও দলকে পৌঁছে দিতে পারেননি জয়ের বন্দরে। ৩৫ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন আফগান অধিনায়ক, করিম জানাতের ব্যাট থেকে এসেছে দলীয় সর্বোচ্চ ৪২* রান। বিশ্বকাপে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে অশ্বিন ১৪ রানে তুলে নিয়েছেন ২ উইকেট। মোহাম্মদ শামি ৩২ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img