৬ ডিসেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

ভিলিয়ার্সের প্রতি সেদিন সব শ্রদ্ধা হারিয়ে ফেলেছিলাম: জন্ডো

- Advertisement -

দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান খায়া জন্ডো ২২ জুলাই ব্যক্তিগতভাবে রূপান্তর ন্যায়পাল কার্যালয়ে তার সাক্ষ্য উপস্থাপন করেন এবং শুক্রবার তা প্রকাশের জন্য অনুরোধ করেন।

দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান খায়া জন্ডো

জন্ডো সামাজিক ন্যায়বিচার ও ন্যাশন বিল্ডিংয়ের শুনানির সময় প্রকাশ করেছিলেন যে, তিনি এবি ডি ভিলিয়ার্সের প্রতি তার সকল শ্রদ্ধা হারিয়ে ফেলেছেন। কারণ, ২০১৫ সালের অক্টোবরে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে আন্তর্জাতিক সিরিজের দল নির্বাচনের সময় ডি ভিলিয়ার্স তার নির্বাচনে বাধা দিয়েছিলেন।

জন্ডোকে একাদশে না নেয়া এবং ম্যানেজমেন্টের ডিন এলগারকে প্রাধান্য দেওয়ার সিদ্ধান্তের ফলে প্রোটিয়া জাতীয় দলে নাটকীয় আন্দোলন শুরু হয়। একদল কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড় ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকাকে একটি চিঠি লিখেছিল, তাদের যথেষ্ট সুযোগ পাওয়া নিয়ে উদ্বেগ এবং অসন্তোষ প্রকাশ করে। দলে থাকলেও তাদের যে সুযোগ হতো না একাদশেই!

জন্ডো ২০১৫ ভারত সফরের দলে ছিল। সিরিজে যখন ২-২এ সমতা, তখন সিরিজ নির্ধারনী ম্যাচে তাকে উপেক্ষা করে দলে সুযোগ দেয়া হয় টেস্ট খেলতে আসা ডিন এলগারকে।

আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না এবিডি ভিলিয়ার্স আমাকে বাদ দেয়ার চেষ্টা করছে” – বাদ পরার ব্যাপারে জন্ডো 

“ডি ভিলিয়ার্স তখন দলের অধিনায়ক ছিল। সে আমাকে দলের সবার থেকে দূরে নিয়ে আসে বললো, তার মনে হয় আমার খেলা উচিত না”- ডি ভিলিয়ার্সকে নিয়ে এরকম মন্তব্যই করেছেন জন্ডো

২০১৫ ভারত সফরে প্রোটিয়াদের নেতৃত্বে ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স

“সে যখন যুক্তি দাড় করানোর চেষ্টা করে যাচ্ছিলো, ঠিক ঐ মুহুর্তে তার প্রতি আমি আমার সকল শ্রদ্ধা হারাতে শুরু করি। আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না, যাকে দেখে আমার বেড়ে ওঠা, আমার ক্রিকেটের হিরো, সেই আমাকে বাদ দেবার জন্য নিজের যুক্তিগুলো স্থাপন করে যাবার চেষ্টা করছেন”

আমি নিজেকে একদিনের জন্য সবকিছু থেকে সড়িয়ে রেখেছিলাম। এটা আমায় পরিস্থিতিটাকে মোকাবেলা করতে সহযোগিতা করেছে সেসময়ে” -বাদ পরার কঠিন মুহুর্তটা নিয়ে বলেছেন জন্ডো

নিজেকে একদিনের জন্য সবকিছু থেকে সড়িয়ে রেখেছিলেন জন্ডো

দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান খায়া জন্ডো ২২ জুলাই ব্যক্তিগতভাবে রূপান্তর ন্যায়পাল কার্যালয়ে তার সাক্ষ্য উপস্থাপন করেন এবং শুক্রবার তা প্রকাশের জন্য অনুরোধ করেন। সাবেক প্রোটিয়া নির্বাচক হুসাইন মানাক তখন জন্ডোকে দলে নির্বাচন না করবার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

“আমার তখন জন্ডোকে সমর্থন দেয়ার প্রয়োজন ছিল। কিন্তু অধিনায়ক জন্ডোকে না খেলাবার জন্য ছিল অনঢ়। আমি হয়তো জন্ডোকে খেলাতে পারতাম। কিন্তু তখন যদি ও রান না পেতো, আর দলও হেরে যেতো, সেটার জন্য জন্ডোকেই দায়ি করা হতো। এটা ওর জন্যই বরং খারাপ হতো”

“এখনও সেই মুহূর্তে ফিরে তাকালে আমার মনে হয়, আমার কি আরও শক্তিশালী হওয়া উচিত ছিল” -জন্ডোর বাদ পরা নিয়ে কথা বলেছেন সাবেক প্রধান নির্বাচক  হুসাইন মানাক।

অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্স জন্ডোকে না খেলাবার জন্য ছিল অনঢ়

মানাক ডি ভিলিয়ার্সের সাথে তার কথোপকথনের ব্যাপারে জানাতে গিয়ে বলেছে, এবিডি  ভেবেছিলো আন্তর্জাতিক স্তরে জন্ডোর শূন্য অভিজ্ঞতা তাকে গ্যালারির বিশাল জনতার সামনে চাপের মুখে ফেলতে পারে। ডি ভিলিয়ার্স এবং মানাক তাই আন্তর্জাতিক এবং আইপিএল উভয় স্তরের অভিজ্ঞতার কারণে দলে আউট ফর্ম ডেভিড মিলারকে রাখতে চেয়েছিলেন।

সামাজিক ন্যায়বিচার ও ন্যাশন বিল্ডিংয়ের পরবর্তী শুনানি ২৩ আগস্ট থেকে আবার শুরু হবে।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img