৩১ জানুয়ারি ২০২৩, মঙ্গলবার

মিরাজ-সাকিবে বাংলাদেশের বড় লিড

- Advertisement -

বাংলাদেশের ৪৬৮ রানের জবাবে মাত্র ২৭৬ রানে গুটিয়ে গেছে জিম্বাবুয়ে। জিমাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ৮৭ রান করেন তাকুয়ানশে কাইতানো। ৮১ রান করেন অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলর। দুজনকেই ফেরান পাঁচ উইকেট শিকার করা মেহেদি হাসান মিরাজ। ৮২ রানে পাঁচ উইকেট নেন মিরাজ, সমান রান খরচ করে সাকিবের শিকার ৪ উইকেট। দুই স্পিনারের ঘুর্নি জাদুতে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের লিড ১৯২ রানের।

আগেরদিন বাংলাদেশের ৪৬৮ রানের জবাব ভালোমতোই দিচ্ছিল জিম্বাবুয়ে। ১ উইকেট হারিয়ে ১১৪ রান নিয়ে দিনশেষ করে জিম্বাবুয়ে। ক্রিজে থাকা দুই ব্যাটসম্যান অভিষিক্ত কাইতানো এবং অধিনায়ক টেইলর দারুন জবাব দিতে থাকেন সফররত বোলারদের। এই দুই ব্যাটসম্যানের কল্যাণে তৃতীয় দিনের সকালের সেশনটাও নিজেদের করে নেয় স্বাগতিকরা। ২ উইকেট হারিয়ে ২০৯ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় জিম্বাবুয়ে। একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন অধিনায়ক টেইলর। শর্ট স্কয়্যার লেগে ইয়াসির আলী রাব্বির ক্যাচ বানিয়ে তাকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ।

প্রথম সেশনে হতাশ করলেও দ্বিতীয় সেশনে স্বরুপে ফিরেছিল টাইগাররা। পুরো সেশনে জিম্বাবুয়ে তুলতে পেরেছিল মাত্র ৪৫ রান।  চা বিরতিতে যাওয়ার আগে জিম্বাবুয়ের বোর্ডে রান ৫ উইকেটে ২৫৪। সাকিবের জোড়া শিকারের সঙ্গে তাসকিনের এক উইকেটে সেশনটা নিজেদের করে নিয়েছিল বাংলাদেশ।  এক পাশে তখনও অবিচল ওপেনার কাইতানো।

চা বিরতি থেকে ফিরে স্পিন ভেল্কি দেখাতে শুরু করেন মেহেদি হাসান মিরাজ। কাইতানোকে উইকেটকিপার লিটন দাশের ক্যাচ বানিয়ে শুরু, এরপর একে একে ফিরিয়েছেন ডোনাল্ড তিরিপানো, ভিক্টর নিওয়াচি এবং ব্লেসিং মুজারাবানিকে।  ফলে ৫ উইকেটে  ২৬১ রান থেকে মুহুর্তেই জিম্বাবুয়ে গুটিয়ে যায় ২৭৬ রানে। রিচার্দ এনগারাভাকে আউট করে তুলির শেষ আঁচড় টানেন সাকিব আল হাসান।  সাকিব মিরাজ দুজনেই দিয়েছেন ৮২ রান করে, দুজনে ঝুলিতে পুড়েছেন ৯টি উইকেট।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img