২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, মঙ্গলবার

‘যেতে নাহি দিবো হায়, তবু যেতে দিতে হয়’

- Advertisement -

‘বার্সা মানেই মেসি, মেসি মানেই বার্সা’ এতদিন এটাই ছিল সবচেয়ে ধ্রুব সত্য। বার্সার সাথে যে মেসির সম্পর্ক সেই ছোটবেলা থেকেই। এখানেই মেসির বেড়ে ওঠা, এখানেই তো মেসির মেসি হয়ে ওঠাও। ২১ বছরের সম্পর্ক বার্সার সাথে মেসির, এতদিনের সম্পর্কের ইতি টেনে চলে যাওয়াটা কি এতটাই সহজ? কিন্তু, যেতে তো একটা সময়ে হয়ই। সবচেয়ে উজ্জ্বল নক্ষত্রটাকেও একদিন হারিয়ে যেতে হয়। মেসিও তেমনি, বিদায় বলতে যাচ্ছেন বার্সাকে, চলে যাচ্ছেন ন্যু ক্যাম্প ছেড়ে। ‘ন্যু ক্যাম্প’ যার প্রতিটা শিশির বিন্দুর সাথেই মিশে আছে মেসির বেড়ে ওঠা! এতশত স্মৃতিকে পেছনে ফেলে মেসি যখন যাচ্ছেন, তখন ভক্তদের হৃদয় তো কাঁদবেই। কিন্তু খেলোয়াড়টা মেসি বলেই হয়তো কাঁদছে তার সতীর্থরাও! টুইট করে জানিয়েছে মেসির প্রতি তাদের ভালোবাসা।

মেসির সাথে বার্সায় ১৪ বছর খেলেছেন আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। দেখেছেন মেসির বেড়ে ওঠা, সেরা হয়ে ওঠা। সেই মেসি যখন বার্সেলোনা ছেড়ে যাচ্ছেন, তখন ইনিয়েস্তাও যে আবেগতাড়িত হবে এটাই তো স্বাভাবিক। সাবেক স্প্যানিশ মিডফিল্ডার টুইট করে বলেছেন, “তোমাকে ছাড়া বার্সাকে কল্পনা করা, ন্যু ক্যাম্পে অন্য জার্সিতে তোমাকে খেলতে দেখা অনেক কঠিন, লিও।”  বার্সার আমেরিকান খেলোয়াড় সার্জিনো ডেস্ট ১ বছর সুযোগ পেয়েছেন মেসির সাথে খেলবার। তিনি টুইট করে জানিয়েছেন, “যখন তুমি একজন তরুণ, তুমি সবসময়ই স্বপ্ন দেখবে মেসির মতো একজনের সাথে খেলার। আমার সৌভাগ্য যে, আমি লিওর সাথে বার্সায় খেলার সুযোগ পেয়েছি, যেখানে সে ইতিহাস গড়েছে। এটা একটা মুহুর্ত যেটা আমি চিরদিন মনে রাখবো।”  

বার্সার স্প্যানিশ সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার পেদ্রো গনজালেজ তার টুইটে  জানিয়েছেন,“গত মৌসুমে তোমার সাথে কাঁটানো মুহুর্তগুলো কখনোই ভুলবো না লিও। সবকিছুর জন্য ধন্যবাদ তোমাকে।” বার্সার ডাচ মিডফিল্ডার ডি জং টুইট করেছেন। লিখেছেন, “আমার জন্য এটা কোনো অংশেই স্বপ্নের চেয়ে কম না যে, আমি ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়ের সাথে খেলেছি।” বার্সার ফ্রেঞ্চ সেন্টার ব্যাক ক্লেমেন্ট লেংলেট তার টুইটে লিখেছেন, “আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না তোমার সাথে ৩টি মৌসুম পার করা আমার জন্য কতবড় সৌভাগ্যের।” বার্সেলোনার জার্মান গোলরক্ষক আন্দ্রে স্টেগেন বলেছেন, “তুমি ফুটবল খেলাটাকেই বদলে দিয়েছো।”  বার্সার সাবেক ফরোয়ার্ড পেদ্রো রদ্রিগেজ তার টুইটে লিখেছেন,“তুমি সবসময়ই সবার আইডল ছিলে। তোমার সাথে বার্সেলোনায় একই দলে খেলতে পেরে নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে করি। আগামীর জন্য শুভকামনা, লিও।”

 

বার্সার ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড ওসুমানে ডেম্বেলে মেসিকে নিয়ে বলেছেন, “বার্সা এবং ফুটবলপ্রেমিদের জন্য তুমি যা করেছো, সেটা কেউই কখনো ভুলবে না।” মেসির সাবেক বার্সা সতির্থ লুইস সুয়ারেজও দিয়েছেন বার্তা। তার টুইটে লিখেছেন,”বার্সেলোনায় যে গল্প তুমি লিখেছ, জানি তা বলার জন্য হাজারো শব্দ আছে। যে ক্লাবে তুমি বেড়ে উঠেছ, যে ক্লাবকে তুমি ভীষণ ভালোবেসেছ এবং ইতিহাসের সেরা হওয়ার আগ পর্যন্ত যে ক্লাবটির হয়ে তুমি জিতেছ অনেক, অনেক শিরোপা। তুমি যেভাবে আমাকে বরণ করে নিয়েছিলে, তার জন্য আমি সবসময় কৃতজ্ঞ থাকব। দারুণ মানুষ তুমি। বার্সেলোনায় হাজারো দারুণ মুহূর্ত তোমার সঙ্গে ভাগাভাগি করতে পেরে গর্বিত এবং তোমার সঙ্গে খেলতে পেরে ভাগ্যবান আমি। আন্তরিকভাবে চাই, তোমার এবং তোমার পরিবারের সঙ্গে ভবিষ্যতে যেটা হবে, সেরাটাই হোক। ভীষণ ভালোবাসি তোমাকে।” জর্ডি আলবা তার টুইটে লিখেছেন, “তুমি শুধু ইতিহাসের সেরা ফুটবলারই নও, তুমি মানুষ হিসেবেও বেশ উচুমাপের।”

বার্সায় মেসির সতীর্থ অ্যান্তনিও গ্রিজম্যান করেছেন আবেগঘন এক টুইট। লিখেছেন,”আমি শুধুমাত্র তোমাকে সবকিছুর জন্য ধন্যবাদই জানাতে পারি, অন্যসব ফুটবলপ্রেমিদের মতো। তুমি বার্সায় এসে এখানকার সবকিছুই বদলে দিয়েছো।” সার্জিও রবার্তো বলেছে, “আমরা কখনোই তোমাকে সেসবকিছু ফিরিয়ে দিতে পারবো না, যা তুমি বার্সায় এসে দিয়েছো। ন্যু ক্যাম্পে তোমায় অনেক মিস করবো, লিও।” বার্সেলোনার বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে সবার আগে মেসিকে নিয়ে পোস্ট করেছেন সার্জিও বুসকেটস। তিনি লিখেছেন,”এখানে তুমি এসেছিলে কিশোর বয়সে এবং চলে যাচ্ছ ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে। এই ক্লাবটি যেখানে পৌঁছানোর যোগ্য, তুমি সেখানে পৌঁছাতে বেড়ে উঠতে সাহায্য করেছ। সবসময় বলতে পারব, তোমার সঙ্গে খেলেছি এবং ভাগাভাগি করেছি অনেক মুহূর্ত। তোমাকে ভীষণ মিস করব।”

মেসির বিদায়ে আবেগপ্রবণ হয়ে বার্সায় তার স্প্যানিশ সতীর্থ জেরার্ড পিকে লিখেছেন, “কোনো কিছুই আর আগের মতো থাকবে না। ক্যাম্প ন্যু, বার্সেলোনা শহর এমনকি আমরাও। ২০ বছরের বেশি সময় ক্লাবে থাকার পর তুমি আর বার্সেলোনার জার্সি পরবে না। এটাই সত্য,কিন্তু  অনেক সময় সত্যটা মেনে নেওয়া কঠিন।” বার্সেলোনায় জাভির সঙ্গে স্বর্ণালি সময় কাটিয়েছেন মেসি। মেসির বিদায়ে জাভি লেখেন, ‘সতীর্থ এবং বন্ধু হিসেবে, আমি শুধু তোমাকে ধন্যবাদ দিতে পারি সব কিছুর জন্য যা তুমি আমাদের দিয়েছ এত বছর। তোমার ভবিষ্যতের জন্য শুভকামনা রাইল।”

বার্সা ছেড়ে যাচ্ছেন মেসি

এত এত ভালোবাসা চারিদিকে, এসব তো মেসির প্রাপ্যও। গত ১৭টি বছরে তো জিতেছেন সম্ভাব্য সবকিছুই। ৭৭৮ ম্যাচ খেলেছেন কাতালানদের হয়ে। গোল করেছেন ৬৭২টি। অ্যাসিস্ট আছে ৩০৫টি। এই ১৭টি মৌসুমে মেসি ১০টি লা লিগা জিতেছেন। কোপা দেল রে জিতেছেন ৭টি। সুপারকোপা ৮টি। সবচেয়ে মর্যাদার চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছেন ৪বার। ইউয়েফা সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপ জিতেছেন ৩টি করে। ব্যালন ডি’অর জিতেছেন ছয়বার, ফুটবল ইতিহাসেই সবচেয়ে বেশি। এত এত অর্জন, সব তো এই বার্সাতে থেকেই। যখন এই বার্সাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানাবেন লিও, পারবেন তো দুচোখের ঐ অশ্রুগুলোকে থামিয়ে রাখতে?

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img