২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার

রাজস্থানের অসহায় আত্মসমর্পণ

- Advertisement -

ম্যাচের শুরুটা কি দারুণ করেছিল মুস্তাফিজুর রহমান। প্রথম ওভারে ৩ রান। স্লোয়রের  দারুণ ভ্যারিয়েশন, গায়কোয়াডের উইকেট। তবে দ্বিতীয় ওভারে আবার ছন্দপতন। মঈন আলীর ক্রসব্যাটে ছয়টাতেই যেন প্রকাশ পেয়েছে বাঁহাতি এই বোলারের অসহায়ত্ব। ৪ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে ১ উইকেট। চেন্নাইয়ের বিপক্ষে মুস্তাফিজুর রহমান গেছেন ভালো খারাপের মধ্য দিয়ে।

শুধু মুস্তাফিজুর রহমান না, মোটামুটি সবাই ছিলেন খরুচে। আগের ম্যাচে দারুণ বোলিং করা উনদারকাট দিশেহারা ছিলেন সোমবারের ম্যাচে। সাকারিয়াও আহামরি কিছু করতে পারেনি, ব্যবধান গড়ে দিতে ব্যর্থ মরিস। ওয়াংখেড়ে চেন্নাই টস হেরে ব্যাটিং করে ৯ উইকেটে করে ১৮৮ রান। সবাই ছিলেন গড়পড়তা, মঈন আলী থেকে প্লেসি, দশে মিলে লড়াই করার মতো সংগ্রহ পেয়েছে চেন্নাই।

কেউ জিতবে কেউ হারবে, এইত নিয়ম। ছবি: সংগৃহীত

লক্ষ্য ছিল কিছুটা কঠিন, সেই খানিক লক্ষ্যই আরও কঠিন হয়েছে রাজস্থানের ব্যাটিংয়ে। জশ বাটলার লড়াই করেছেন, থেমেছেন ৪৯ করে। মিডল অর্ডারের ব্যর্থতাই ডুবিয়েছে মুস্তাফিজুর রহমানদের। রাজস্থান থেমেছেন ১৪৩ করে। ৪৫ রানে জয়ী চেন্নাই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

চেন্নাই সুপার কিংস:  ১৮৮/৯ (২০ ওভার) (মঈন ২৬, প্লেসি ৩৩, মুস্তাফিজুর রহমান ৪-০-৩৭-১, মরিস ৪-০-৩৩-২,  উনাদকাট ৪-০-৪০-০, সাকারিয়া ৪-০-৩৬-৩)।

রাজস্থান রয়্যালস:  ১৪৩/৯ (২০ ওভার) (বাটলার ৪৯, উনাদকাট ২৪, মুস্তাফিজুর রহমান ০*, মঈন আলী ৩-০-৭-৩ , কারান ৪-০-২০-২)।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মঈন আলী।

 

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img