২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার

রাসেল ঝড়ে কুমিল্লার জয়

- Advertisement -

পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দলের ম্যাচ। মঙ্গলবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে যে উদ্দেশ্য নিয়ে এসেছিলেন সমর্থকরা। রংপুর রাইডার্স আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স সেটা পূরণ করতে না পারলেও পুরো ম্যাচজুড়ে উত্তেজনার কমতি ছিল না। তাওহীদ হৃদয় আউট করার পর সাকিবের বাই বাই সেলিব্রেশন, শেষের দিকে আন্দ্রে রাসেলের ঝড়। ক্যারীবিয়ান তারকার ব্যাটিং তান্ডবে ৬ উইকেটের জয় পেয়েছে কুমিল্লা।

টসে জিতে রংপুরকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠান লিটন কুমার দাশ। কুমিল্লা অধিনায়কের লক্ষ্যটা পরিষ্কার, যত কম রানে সম্ভব নুরুল হাসান সোহানের দলকে আটকে দেওয়া। ভিক্টোরিয়ান্স অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন মুশফিক হাসান-ম্যাথু ফোর্ডরা।

রংপুরের টপ অর্ডারের ব্যাটাররা কুমিল্লার বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেননি। বরাবরের মতো এদিনও চেষ্টা করেছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে ১৯ বলে ২৪ রানের বেশি করতে পারেননি জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক।

তবে রংপুরের হালটা ধরেছিলেন নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার জিমি নিশাম। কিউই এ ব্যাটারের ৪২ বলে ৬৯ অপরাজিত ৬৯ রানের কল্যাণে ১৫০ রানের সংগ্রহ পায় তিস্তা পাড়ের দলটি।

কুমিল্লার হয়ে ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন মুশফিক হাসান। রাসেল ৩ উইকেট নিতে খরচ করেছেন ২.৫ ওভারে ২০ রান।

রান তাড়ায় শুরুটা ভাল করে কুমিল্লা। সুনীল নারাইনকে ফিরিয়ে ৩৬ রানের জুটি ভাঙেন সাকিব। ক্যারীবিয় এ অলরাউন্ডারের দুর্দান্ত ক্যাচ নেন শামীম পাটোয়ারী। একই ওভারে তাওহীদ হৃদয়কেও ফিরিয়েছেন সাকিব। তবে লিটনের সাথে জুটি গড়ে কুমিল্লাকে জয়ের পথেই রাখেন মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন। ৪২ বলে ৪৩ রান করা লিটনকে ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন সাকিব। এরপর দ্রুত ফেরেন অঙ্কনও।

তবে কুমিল্লাকে স্বরণীয় জয় এনে দেন রাসেল। মাত্র ১২ বলে ৪টি করে বাউন্ডারি ও ছক্কার মারে অপরাজিত ৪৩ রান করে দলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়েন তিনি।

রংপুরের হয়ে ৪ ওভারে ২০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন সাকিব।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img