১৪ জুন ২০২৪, শুক্রবার

রিয়াল মাদ্রিদ না চেলসি, ফাইনালে ম্যান সিটির সঙ্গী হবে কে?

- Advertisement -

নিজেদের ক্লাব ইতিহাসে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠেছে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি। ফাইনালে সিটিজেনদের সঙ্গী হবে কোন দল জানা যাবে রাতেই। রাত ১টায় সেমিফাইনালের ফিরতি লেগে চেলসির বিপক্ষে মাঠে নামবে স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ।

রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রাজা বলা হয়। ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় রিয়াল মাদ্রিদের শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। ইতিহাস, ঐতিহ্য আর পরিসংখ্যানে ইউরোপ সেরার আসরে অন্য যেকোন দলের চেয়ে বেশ এগিয়ে জিদানের শিস্যরা। ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের আসরে দুনিয়ার সেরা সব ক্লাবগুলো যাদের সামনে রীতিমতো দুমড়েমুচড়ে পড়ে, তারা কিনা ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় একবারও হারাতে পারেনি চেলসিকে। অল ব্লুজদের বিপক্ষে ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় পাঁচ ম্যাচ খেলে এখনও জয়ের দেখা পায়নি রিয়াল। চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে প্রথম লেগে ঘরের মাঠে থমাস টুখেলের দলের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করার পর এবার ফিরতি লেগ খেলতে স্টামফোর্ড ব্রীজে নামবে জিনেদিন জিদানের দল।

চ্যাম্পিয়নস লিগে ইংলিশ ক্লাবগুলোর সাথে সবশেষ চার অ্যাওয়ে ম্যাচে জয় পায়নি রিয়াল মাদ্রিদ। ২০১৪ সালে সবশেষ লিভারপুলের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ ৩-০ গোলে জিতেছিলো মাদ্রিদ। এবারও ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের আসরের শেষ চারে প্রথম লেগে রিয়ালের মাঠ থেকে গুরুত্বপূর্ণ ড্র নিশ্চিত টমাস টুখেলের দলকে এগিয়ে রাখবে।

জিদানের জন্য স্বস্তির খবর স্টামফোর্ড ব্রীজে পুরো ফিট এডেন হ্যাজার্ডকে পাচ্ছেন, প্রথম লেগ খেলতে না পারলেও অল ব্লুজদের মাঠেই দেখা যাবে বেলজিয়াম তারকা মিডফিল্ডারকে। পেশিতে কিছুটা চোট পেলেও শুরুর একাদশেই থাকবেন টনি ক্রুস। করোনা আক্রান্ত মিডফিল্ডার ভালভার্দেও আইসোলেশন শেষে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। চোটে পড়ে ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারানে মাঠের বাহিরে চলে গেলেও জিদানের জন্য স্বস্তির খবর অনুশীলন করেছেন কাপ্তান সার্জিও রামোস। যদিও স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের শুরুর একাদশে থাকার সম্ভাবনা কম।

রাতে স্টামফোর্ড ব্রীজে নতুন মাইলফলক স্পর্শ করার সুযোগ করিম বেনজেমার সামনে। আর মাত্র একটি গোল করতে পারলেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সর্বকালের চতুর্থ সর্বোচ্চ গোলদাতা হবেন ফরাসি স্ট্রাইকার।

তৃতীয়বারের মত চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলবে চেলসি। আধুনিক যুগে ইংলিশ ক্লাবগুলো মধ্যে শুধু লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডই  তাদের চেয়ে বেশিবার ইউরোপ সেরার আসরে ফাইনাল খেলতে পেরেছে।

স্টামফোর্ড ব্রীজে রাতে লড়াই হবে ডাগআউটে বসা দুই মাস্টারমাইন্ডের মধ্যেও। লন্ডনে স্বাগতিক চেলসি বাধা পার হতে পারলেই যৌথভাবে সর্বাধিক চারবার উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলার রেকর্ডে গড়বে রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদান। জিদানের মাইলফলকের পথে বড় বাধা হয়ে থাকবে চেলসি কোচ টমাস টুখেল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে ঘরের মাঠে ১৮ ম্যাচে কেবল ৪ ম্যাচ হেরেছে জার্মান কোচ।

ফ্রাংক ল্যাম্পার্ডের বিদায়ের পর বদলে যাওয়া চেলসি সাত বছরের আক্ষেপ ঘুচিয়ে ইউরোপ সেরার আসরে শেষ চারে উঠেছে। সেমিফাইনালে লস ব্লাংকোসদের মাঠ থেকে গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ে গোল ছিনিয়ে এনে ফাইনালের পথেও এগিয়ে আছে। ক্লাব ইতিহাসের তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফাইনাল খেলতে প্রস্তুত টমাস টুখেলের শিস্যরা।

ইনজুরি থেকে সেরে উঠতে না পারায় রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ঘরের মাঠে চেলসির হয়ে খেলতে পারবেন না মিডফিল্ডার ম্যাটিও কোভাসিস। তবে টুখেলের জন্য স্বস্তি ফুলহ্যামের বিপক্ষে হালকা চোট পাওয়া ম্যাসন মাউন্ট ফিট হয়ে ফিরছেন একাদশে।

ফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গী হবে কে ? রিয়াল মাদ্রিদ নাকি চেলসি ? জানা যাবে রাতেই।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img