৭ ডিসেম্বর ২০২২, বুধবার

শচীনের শততম সেঞ্চুরির স্মৃতিতে বাংলাদেশ

- Advertisement -

৯৯ থেকে একশো করতে অপক্ষা ছিল এক বছর। সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি। কত রেকর্ডই না এক ক্রিকেট জীবনে বাক্সবন্দী করেছেন শচীন রমেশ টেন্ডুলকার। কিন্তু ২৪ বছরের ক্যারিয়ারের একটা রেকর্ড স্পেশালই থাকবে সবসময়।  ভারতীর কিংবদন্তী ক্রিকেটারের জীবনেও আছে স্পেশাল একটা ইনিংস।

১৬ মার্চ, ২০১২। ১৬ মার্চ আসবে প্রতিবছর ক্যালেন্ডারের পাতায়। কিন্তু ৯ বছর আগের ওই মার্চ বিশেষভাবেই স্মরণীয় করবে ক্রিকেট ক্যালেন্ডারকে। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের বাইশ গজের সবুজ ক্যানভাসে শচীন তার ব্যাটে লিখে দিয়েছিলেন ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যন্য রেকর্ড। সেই ইতিহাসের চাক্ষুস সাক্ষী ছিল মিরপুরে উপস্থিত হাজার হাজার দর্শক। আর টিভিতে দেখার সংখ্যা অগনিত। এশিয়া কাপের ম্যাচে ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে। ব্যাটিংয়ে ভারত। ৪২ তম ওভারে শচীনের ৯৯ রান পা রাখেন। এই নিরানব্বইতেও রোমাঞ্চ ছিল। অপেক্ষা যেন ফুরাচ্ছিলনা। পরে আরো একটি ওভার ৯৯ তেই কাটিয়ে দেন।

অবশেষে বহু কাংখিত সময়টা আসে চুয়াল্লিশতম ওভারের চতুর্থ বলে। সাকিব আল হাসানের বলে স্কয়ার লেগ পাঠিয়ে দৌড়ে এক রান নেন। আর তখনই ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে শতকের শতক পূর্ণ করেন শচীন টেন্ডুলকার। ওটাই তার ক্যারিয়ারের শেষ শতক। তবে সেঞ্চুরির সেঞ্চুরিটা জয়ে রাঙ্গাতে পারেননি টেন্ডুলকার। ওই ম্যাচে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জিতেছিলো। শচীন এশিয়া কাপের ওই আসরেই খেলেন সবশেষ ওয়ানডে ম্যাচটাও। মাস্টার ব্লাস্টারের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে টেস্টে ৫১ এবং ওয়ানডেতে রয়েছে ৪৯ সেঞ্চুরি। দুই ফর্ম্যাটে তার রান ৩৪ হাজার ৩৪৭।

মোট রান এবং সেঞ্চুরির রেকর্ড এখন পর্যন্ত শচীন অদ্বিতীয়। রেকর্ড ভাঙ্গা-গড়ার খেলা। এই খেলায় শচীনকে ছোঁয়ার মতো বর্তমান ক্রিকেট খেলুড়েদের মধ্যেও ধারেকাছেও কেউ নেই। তবে হয়তো কোন একদিন, কেউ শচীনের রেকর্ডকেও টপকে যাবেন। কিন্তু প্রথমের মাহাত্ম আলাদা। যেখানে শচীন রমেশ টেন্ডুলকার মনে রাখতে হবে যতদিন ক্রিকেট বেঁচে থাকবে।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img