NCC Bank
- Advertisement -NCC Bank
১৬ আগস্ট ২০২২, মঙ্গলবার

সাকিবের কলকাতার বিপক্ষে শেষ বলে গিয়ে জিতলো চেন্নাই

- Advertisement -

রবীন্দ্র জাদেজার ব্যাটিং-ঝড়ে তুমুল উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ২ উইকেটে হারিয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। নাটকীয় ম্যাচের ফলাফলের জন্য অপেক্ষা গড়িয়েছে একদম শেষ বল পর্যন্ত। সাকিব আল হাসান এই ম্যাচেও খেলেননি কলকাতার হয়ে।

টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন কলকাতার অধিনায়ক মরগান। প্রথম ওভারেই অবশ্য আসে ধাক্কা; পঞ্চম বলে এলবিডাব্লিউর আপিল থেকে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যাওয়া শুভমান গিল পরের বলেই রানআউট হয়ে যান ৯ রানে। গত ম্যাচের মতো এইম্যাচেও জমে উঠেছিল ভেঙ্কটেশ আইয়ার-রাহুল ত্রিপাঠি জুটি। ৫ ওভারেই ৫০ স্পর্শ করে কেকেআরের দলীয় স্কোর। তবে এরপরপরই শার্দূল ঠাকুরের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে যান আইয়ার।

আইয়ার আউট হওয়ার সাথে সাথে কেকেআরের রানের চাকায়ও খানিকটা লাগাম পরে। কলকাতা অধিনায়ক এউইন মরগান নিজের বাজে ফর্ম থেকে বেরোতে পারেননি এই ম্যাচেও; দলীয় ৭০ রানে জশ হ্যাজলউডের বলে আউট হয়ে যান ১৪ বলে মাত্র ৮ রান করে। গত ম্যাচে কেকেআরের জয়ের নায়ক রাহুল ত্রিপাঠি এদিন বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৩৩ বলে ৪৫ করে বোল্ড হন রবীন্দ্র জাদেজার বলে। তবুও ইনিংস শেষে কেকেআরের সর্বোচ্চ রান ত্রিপাঠিরই। শেষদিকে নিতিশ রানার ২৭ বলে ৩৭,  আন্দ্রে রাসেলের ১৫ বলে ২০ ও দিনেশ কার্তিকের ১১ বলে ২৬ রানের ঝড়ে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রানে শেষ হয় কলকাতার ইনিংস। চেন্নাইয়ের পক্ষে জশ হ্যাজলউড ও শার্দূল ঠাকুর নেন ২টি করে উইকেট।

Image
দিনেশ কার্তিক খেলেছেন ১১ বলে ২৬ রানের বিধ্বংসী ইনিংস

রুতুরাজ গায়কোয়াড় ও ফাফ ডু প্লেসির ঝড়ো ওপেনিং জুটির কল্যাণে বড় লক্ষ্যটিকেও ধরাছোঁয়ার মাঝেই এনে ফেলেছিল চেন্নাই। আন্দ্রে রাসেলের বলে গায়কোয়াড়ের বিদায়ে ভাঙ্গে তাদের ৫০ বলে ৭৪ রানের জুটি; গায়কোয়াড় করেন ২৮ বলে ৪০। এরপর প্রসিদ্ধ কৃষ্ণার বলে ৩০ বলে ৪৪ করে আউট হন ডু প্লেসি।

এরপরই যেন ছন্দ হারিয়ে ফেলে চেন্নাই। রান বাড়ানোর চেষ্টায় একে একে ফিরে যান আম্বাতি রায়ুডু ও মইন আলি। ১৮তম ওভারের প্রথম বলেই রান আউট হন সুরেশ রায়না। এক বল পরেই বরুণ চক্রবর্তী তুলে নেন মহেন্দ্র সিং ধোনির উইকেট। এরপরই শুরু হয় জাদেজা-ঝড়।

যখন ক্রিজে আসেন, জয়ের জন্য চেন্নাইয়ের লাগতো ১৭ বলে ৩১ রান। ব্যাটকে তলোয়ার বানিয়ে বোলারদের কচুকাটা করে রান বলের পার্থক্য একেবারেই কমিয়ে দেন ‘জাদ্দু’। ১৯তম ওভারে প্রসিদ্ধ কৃষ্ণকে টানা চার বলে যথাক্রমে দুটি ছক্কা ও দুটি চার মারেন জাদেজা। জয়ের জন্য শেষ ৬ বলে চেন্নাই পায় মাত্র ৪ রানের মামুলি লক্ষ্য। তবে সুনিল নারাইন শেষ ওভারেই জমিয়ে দেন নাটক। প্রথম বলেই ম্যাচ শেষ করে দিতে চাওয়া স্যাম কারানকে তিনি বানান লং অফে কমলেশ নাগরকোটির ক্যাচ, পরের বলটি দেন ডট। তৃতীয় বলে তিন রান নেন শার্দূল ঠাকুর। চতুর্থ বলে রবীন্দ্র জাদেজা রান নিতে পারলেন না, পঞ্চম বলে হয়ে যান এলবিডাব্লিউ। তার আগে খেলেন ৮ বলে ২২ রানের বিস্ফোরক ইনিংস।

 

জাদেজার ঐ ইনিংসের পরও জয়ের জন্য শেষ ১ বলে ১ রান লাগত চেন্নাইয়ের; ম্যাচ সুপার ওভারে যাবে কিনা তা নিয়ে চলছিল জল্পনা-কল্পনা; দীপক চাহার অবশ্য সেটি নিতে ভুল করেননি।

এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থান ধরে রাখলো চেন্নাই।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img