৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, শুক্রবার

সেমির পথে ‘ব্ল্যাকক্যাপস’দের আরেক পা

- Advertisement -

শারজাহতে আরো একটি সহজ জয় তুলে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। নামিবিয়াকে ৫২ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সেমিতে ওঠার পথে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলো ব্ল্যাকক্যাপসরা।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা নিউজিল্যান্ডের ভালো হয়নি। এমনকি ১৬ ওভার পর্যন্ত কিউইদের ভালোই বেঁধে রেখেছিলো নামিবিয়া। প্রথম থেকেই নামিবিয়ার বোলাররা হাত খুলতে দেয়নি কিউই ব্যাটসম্যানদের। পাওয়ারপ্লেতে আসে মাত্র ৪৩, ডেভিড উইজা তুলে নেন পার্টিন গাপটিলকে। এরপর আরো তিন উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড নিয়মিত বিরতিতে। একে একে ফিরে যান ড্যারিল মিচেল, কেন উইলিয়ামসন ও ডেভন কনওয়ে।

নামিবিয়ান স্পিনারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং ও ফিল্ডারদের দক্ষতায় একসময় যখন মনে হচ্ছিল ১৪০ ও করতে পারবে না নিউজিল্যান্ড, সেখান থেকে ২০ ওভার শেষে তাদের স্কোর গিয়ে থেমেছে  ১৬৩/৪ এ।  স্লগ ওভারে জিমি নিশাম ও গ্লেন ফিলিপসের ব্যাটিং ঝড়ের যেমন এতে অবদান ছিলো, তেমনি নিজের প্রথম ওভারে ৯ রান দেওয়া স্মিট শেষ ওভার করতে এসে ৪টি ওয়াইডসহ ১৮ রান দিয়েও কম অবদান রাখেননি। ১৬ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ড তুলেছিল ৯৬ রান। এরপর গ্লেন ফিলিপস ও জিমি নিশামের ঝড়ো পার্টনারশিপের কল্যাণে বাকি ৪ ওভারে নিউজিল্যান্ড তোলে ৬৭ রান! ফিলিপস ২১ বলে ১ চার ও তিনটি বিশাল ছক্কায় ৩৯* রান তোলেন, নিশাম তোলেন ২৩ বলে ৩৫*।

১৬৪ রানের লক্ষ্যে পাওয়ারপ্লেতে কোন উইকেট হারায়নি নামিবিয়া; তোলে ৩৬ রান। দলীয় ৪৭ রানে জিমি নিশামের দুর্দান্ত ডেলিভারিতে ওপেনার মাইকেল ফন লিঙ্গেনের আউট দিয়ে শুরু। এরপর আর গতি পায়নি নামিবিয়ার ইনিংস। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে। মন্থর পিচে টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট গতির বৈচিত্র্যে করেছেন নাজেহাল। দুই পেসারই নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। নামিবিয়ার মাত্র ৪জন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের রানে পৌঁছেছে; সর্বোচ্চ ফন লিঙ্গেনের ২৫। অবশ্য অলআউট হয়নি নামিবিয়া। ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১১১ তুলতে শেষ হয়েছে তাঁদের ইনিংস।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img