২৩ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার

১১ বছর পর দেখা, ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ল স্পেন-ব্রাজিল

- Advertisement -

১১ বছর পর ব্রাজিল এবং স্পেনের শ্বাসরুদ্ধকর এক ম্যাচের সাক্ষী হলো ফুটবল বিশ্ব। বর্ণবাদবিরোধী প্রচারের অংশ হিসেবে ‘একই ত্বক, উভয় দেশ’ স্লোগান নিয়ে এ ম্যাচ আয়োজনের কথা ২০২৩ সালের জুনেই জানিয়েছিল ব্রাজিল ও স্পেনের ফুটবল ফেডারেশন। মাদ্রিদের সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে অনুষ্ঠিত ফিফা প্রীতি ম্যাচটি ড্র হয়েছে ৩-৩ গোলে।

ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট দেখিয়েছে স্বাগতিক স্পেন। গোল বাঁচাতে গিয়ে ১২তম মিনিটে লামিন ইয়ামালকে ফাউল করে বসেন জোয়াও গোমেজ। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে মাঝ বরাবর স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন রদ্রি। ম্যাচের ৩৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দানি ওলমো। ইয়ামালের পাস ডি-বক্সে বলে পেয়ে ঠান্ডা মাথায় কোনাকুনি শটে গোলটি করেন লাইপজিগের এই মিডফিল্ডার। ম্যাচের ৩৬ মিনিটেই ০-২ গোলে পিছিয়ে পড়ে ব্রাজিল।

দুই গোলে পিছিয়ে পড়ে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া হয়ে ওঠে ব্রাজিল। মাত্র ১৪ মিনিটের ব্যবধানে সেই দুই গোল পরিশোধ করে সমতায় ফেরে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। যদিও সেলেসাওরা প্রথম গোলটি পেয়েছে স্পেন গোলরক্ষকের ভুলে। সতীর্থের ব্যাকপাস পেয়ে আরেক সতীর্থকে খুঁজে নেয়ার চেষ্টায় রদ্রিগোর পায়ে বল তুলে দেন উনাই সিমোন। ফলাফল রদ্রিগোর গোল। অনেকখানি এগিয়ে থাকা গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জালে জড়ান রিয়াল মাদ্রিদের এই ফরোয়ার্ড।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে একসাথে চারটি পরিবর্তন আনে ব্রাজিল। আক্রমণের ধার বাড়াতে রাফিনিয়ার জায়গায় নামেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের নায়ক এনদ্রিক। ম্যাচের ৫০ মিনিটে গোল করে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান।
ব্রাজিল সমতায় ফিরলে দুই দলই আক্রমণ চালিয়ে যেতে থাকে সমান তালে। ৮৭ মিনিটে রদ্রির পেনাল্টিতে আবারও এগিয়ে যায় স্পেন। কিন্তু শেষ বাঁশি বাজার আগে ব্রাজিলও পায় পেনাল্টি। স্পটকিক থেকে গোল করে দলের হার এড়ান লুকাস পাকেতা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচ ড্র হয়েছে ৩-৩ গোলে।

এর আগে সবশেষ তারা মুখোমুখি হয়েছিল ২০১৩ সালের জুনে ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের ফাইনালে। ব্রাজিলের রিও ডি জেনেরিওতে সেই ম্যাচে স্পেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল সাম্বা ছন্দের দেশ।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img