২০ মে ২০২৪, সোমবার

৫৪১ রানে ডিক্লেয়ার; টেস্ট জেতার ব্যাটিং করেছে বাংলাদেশ?

- Advertisement -

ড্র করাই কি বাংলাদেশের প্রাথমিক লক্ষ্য? নয়তো মুশফিকের অতি সাবধানী ব্যাটিংয়ের ব্যাখ্যা কি? টিম ম্যানেজমেন্টই চেয়েছে লম্বা সময় ব্যাট করুক টাইগাররা? লিটনের আউটের পর সাত ওভার মুশফিক বড় শট খেলেননি, খেলার চেষ্টাও করেননি। দলের ভাবনার কারণেই কি?

সৌজন্য: বিসিবি ও শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড

বাংলাদেশ দলের ব্যাটিংয়ের ধরণ কেমন হবে? কত রানে ডিক্লেয়ার করলে ভাল? কিংবা কেন দ্বিতীয় দিনের শেষ দিকে মুশফিক আরেকটু চালিয়ে খেললেন না? এরকম অনেক প্রশ্ন নিয়েই শুরু হয়েছিলো পাল্লেকেলে টেস্টের তৃতীয় দিন। দিনের প্রথম ওভারেই ১২ রান।

টাইগার ইনিংসের ১৫৬তম ওই ওভারের প্রথম চার বলের সবগুলোতে এক রান করে নিয়েছেন মুশফিক-লিটন, শেষ দুই বলে টানা দুই চারে লিটন দাশ পরিষ্কার করেছেন, বাংলাদেশ দ্রুত রান করতে চায়। দ্বিতীয় দিন শেষ বিকেলে খুঁইয়ে ফেলা সময়টুকুর হিসাবও পুষিয়ে দেয়ার তাড়না ছিলো ব্যাটিংয়ে, যার প্রমাণ; তৃতীয় দিনের প্রথম ৫ ওভারে ২৬ রান। একশো ষাটতম ওভারে টাইগারদের ৫০০, ওই ওভারেই মুশফিকুর রহিমের ২৩তম টেস্ট ফিফটি। মুশফিকের ক্যারিয়ার গ্রাফে তাকিয়ে তখন দর্শকের আফসোস হতেই পারে, ২৩ ফিফটির পাশে ৭ সেঞ্চুরি একটু যেন বেমানান। ফিফটিগুলো একশো বানানোর মুন্সিয়ানায় এখনো অনেকটাই পিছিয়ে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা।

সৌজন্য: বিসিবি ও শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড

মুশফিক লিটনদের ব্যাট করার ধরণ দেখে শ্রীলংকাও বুঝে গিয়েছিলো, দ্রুত রানের হিসেব ছাড়া আর কিছুই ভাবছে না বাংলাদেশ। সময় নষ্ট না করে ৮০ ওভার হওয়া মাত্র তৃতীয় নতুন বল নিয়েছে লঙ্কানরা, সাফল্য পেতেও সময় লাগেনি। দারুণ ইতিবাচক ভঙ্গীতে ৬৬ বলে ৮ম হাফ সেঞ্চুরি করা লিটন দাশ আউট হয়েছেন ফিফটি করার ঠিক পরের বলেই। বিশ্ব ফার্নান্দোর অফ স্ট্যাম্পের অনেকটা বাইরের লেন্থ বলে ফুটওয়ার্ক ছাড়া ব্যাট চালিয়ে ক্যাচ দিয়েছেন গালিতে।

সৌজন্য: বিসিবি ও শ্রীলংকা ক্রিকেট বোর্ড

লিটনের পর উইকেট আসা মিরাজের ব্যাটিং ছিলো রীতিমতো অ্যাকশন-ড্রামা-সাসপেন্সে ভরপুর। পনেরো বলের ইনিংসে মিরাজের পক্ষে গেছে দুই রিভিউ। প্রথমবার আম্পায়ার কট বিহাইন্ড দিয়েছেন, মিরাজ রিভিউ নিয়ে বেঁচেছেন। সুরাঙ্গা লাকমলের পরের বলেই আবার কট বিহাইন্ডের আবেদন, আম্পায়ার আউট দেননি কিন্তু লংকানরা রিভিউ নিয়েছে, তাতেও ফল গেছে মিরাজের পক্ষে!! এক বল পরেই একই ভঙ্গীতে ব্যাট চালিয়ে উইকেটকিপারের কাছে ক্যাচ দিয়েছেন মেহেদী মিরাজ।

লিটনের উইকেটের পরই যেনো মুশফিক দ্বিতীয় দিনের মতো আবারও খোলস বন্দী। সেই খোলস আরো শক্ত করেছে মিরাজের উইকেট, দিনের প্রথম ৫ ওভারে যেখানে ২৬, সেখানে পরের ১৩ ওভারে বাংলাদেশ তুলেছে ৪১ রান, ব্যাখ্যা কি?

কমেন্ট্রি বক্সে বসা আমির সোহেল বলতে বাধ্য হয়েছেন, “মুশফিকুর রহিম ফিফটি করে উইকেটে আছেন ঠিক কিন্তু প্রয়োজনের চেয়ে অনেক বেশি বল খেয়েছেন”  

শেষ পর্যন্ত মুশফিকুর রহিম নটআউট ৬৮, বাংলাদেশ প্রথম  ইনিংস ঘোষণা করেছে ৫৪১ রানে, সাত উইকেট হারিয়ে। লাঞ্চ ব্রেকের আগে শ্রীলঙ্কা ব্যাট করার সময় পাবে ৪৫ মিনিটের মতো।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img