১৭ জুলাই ২০২৪, বুধবার

ঢাকার টানা দশম হার, জয়ে ফিরল খুলনা

- Advertisement -

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চট্টগ্রাম পর্বে প্রতিটি ম্যাচেই আগে ব্যাট করে দলগুলো বড় সংগ্রহ পেয়েছিল। তবে টুর্নামেন্ট টানা নয় ম্যাচ ধরে হারতে থাকা দুর্দান্ত ঢাকা ব্যতিক্রম। শুক্রবার দিনের প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে ১২৮ রান সংগ্রহ করেছে তাসকিন আহমেদের দল। পারভেজ হোসেন ইমন ও আফিফ হোসেন ধ্রুবর দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সহজ জয় পেয়েছে খুলনা। ৫ উইকেট ও ২৮ বল বাকি থাকতেই ঢাকাকে হারিয়েছে তারা। টানা চার ম্যাচ জিতে টুর্নামেন্ট শুরু করা এনামুল হক বিজয়ের দল টানা পাঁচ ম্যাচ পর জয়ের দেখা পেল।

টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন তাসকিন। ঢাকা অধিনায়কের লক্ষ্যটা পরিষ্কার, যতটা সম্ভব খুলনাকে বড় লক্ষ্য দেওয়া। তবে ইনিংসের শুরুটা ভালো করতে পারেনি ঢাকা দুই ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ ও অ্যাডাম রসিংটন। শুরু থেকেই খুলনার বোলারদের সামনে ভুগেছেন নাঈম। ১১ বলে মাত্র ৫ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন তিনি।

চলমান বিপিএলে টানা দশ ম্যাচে হারল ঢাকা

ঢাকার আরেক ওপেনার রসিংটন শুরুটা ভালো করলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি। ১২ বলে ২ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ১৮ রান করে ওয়েইন পারনেলের তৃতীয় শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। এর আগে নাঈম ও সাইফের উইকেটও নিয়েছেন প্রোটিয়া অলরাউন্ডার।

ঢাকার হয়ে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা অ্যালেক্স রস এদিন তেমন কিছু করতে পারেননি। খুলনার বোলারদের সামনে অসহায় ছিলেন এদিন তিনি। রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৩৫ বলে করেছেন মাত্র ২৫ রান।

ঢাকা ১২৮ রানের সংগ্রহ পায় মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও চতুরঙ্গা ডি সিলভার কল্যাণে। ২৩ বলে ২৬ রান করেছেন মোসাদ্দেক আর চতুরঙ্গা অপরাজিত ছিলেন ১১ বলে ২ ছক্কায় ১৭ রান করে।

খুলনার হয়ে ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করেছেন ওয়েইন পারনেল। মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ ৩ উইকেট নিতে খরচ করেছেন ১৮ রান।

১২৯ রানের ছোট লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম বলেই বিজয়ের উইকেট হারায় খুলনা। দলীয় ১৭ রানে এভিন লুইসকেও প্যাভিলিয়নে ফেরান শরীফুল ইসলাম।

তবে খুলনার হাল ধরেন ইমন। তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন শাই হোপ। দুজনের তৃতীয় উইকেট জুটিতে ৩৮ বলে ওঠে ৪৯ রান। ইমন ৩০ বলে ৪০ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরলে ভাঙে সেই জুটি। এরপর ফিরেছেন হোপও। তবে খুলনাকে বিপদে পড়তে দেননি আফিফ। ২১ বলে ২ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় ৪৩ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছেন তিনি।

ঢাকার হয়ে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন তাসকিন আহমেদ ও শরীফুল ইসলাম।

- Advertisement -spot_img
- Advertisement -

সর্বশেষ

- Advertisement -
- Advertisement -spot_img